Is-your-name-in-the-new-list-of-Lakshmir-Bhandar-Scheme-check-this-way

লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পের তালিকায় আপনার নাম রয়েছে কী? এই প্রশ্নই বর্তমানে অধিকাংশ আবেদনকারীর মনে ঘুরপাক খাচ্ছে। উল্লেখ্য, পশ্চিমবঙ্গের মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় গতবছর জুলাই মাসে লক্ষীর ভান্ডার প্রকল্পের সূচনা করেছিলেন যার মাধ্যমে জেনারেল ও OBC মহিলাদের প্রতি মাসে ৫০০ টাকা এবং SC / ST মহিলাদের প্রতি মাসে ১০০০ টাকা ভাতা দেওয়া হয়। ইতিমধ্যেই লক্ষীর ভান্ডার প্রকল্পের মোট উপভোক্তার সংখ্যা দেড় কোটি ছাড়িয়েছে। স্বভাবতই এতো বিপুল পরিমান মহিলা এই প্রকল্পে আবেদন করায় অনেকসময়ই প্রকল্পে নাম নথিভুক্তকরণের প্রক্রিয়ায় নানারকম সমস্যা দেখা দিচ্ছে। প্রায়শই এরকম অভিযোগ শোনা যায় যে লক্ষীর ভান্ডার প্রকল্পে আবেদন করেও অনেকে টাকা পাননি। ফলে স্পষ্টতই লক্ষীর ভান্ডার (Lakshmir Bhandar List Check) প্রকল্পে অফিসিয়ালভাবে নাম নথিভুক্ত রয়েছে কিনা সে বিষয়ে অনেকেই সন্ধিহান রয়েছে।

আজকে আপনাদের সাথে এই বিষয় নিয়েই আলোচনা করবো। খুব সহজেই বুঝে যাবেন লক্ষীর ভান্ডার প্রকল্পের লিস্টে আপনার নাম রয়েছে কিনা।

লক্ষীর ভান্ডার প্রকল্পের লিস্টে আপনার নাম রয়েছে কি?

এটি জানার জন্য দুটি সহজ উপায় রয়েছে,

প্রথম উপায়, লক্ষীর ভান্ডার প্রকল্পে আবেদন করার সময় দেওয়া মোবাইল নম্বরটির মেসেজগুলো ভালো করে চেক করবেন। এই প্রকল্পে আবেদন করার পরে প্রথম মেসেজটি আসবে এরকম ধরণের – Your Lakshmir Bhandar Application is received with application ID ABCDE (নির্দিষ্ট একটি নম্বর), lakhsmir vandar, Govt of WB যার অর্থ হলো আপনার লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পের আবেদনপত্র গ্রহণ করা হয়েছে।

এর কিছুদিন পরে আবার একটি মেসেজ আসবে – Your Lakshmir Bhandar application with application ID ABCDE (নির্দিষ্ট একটি নম্বর) has been sanctioned with beneficiary ID ABCDE Lakshmir Bhandar, Govt. of WB যার অর্থ আপনার লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পের আবেদনপত্র sanctioned করা হয়েছে।

মোবাইলে এই দুটি মেসেজ আসলেই আপনি বুঝতে পারবেন যে লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পে আপনার নাম নথিভুক্ত করা হয়েছে এবং আবেদনের পরবর্তী সব মাসের টাকাই আপনি নিজের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে পেয়ে যাবেন। শুধু প্রথম SMS টি মোবাইলে আসলে আপনার নাম লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পের তালিকায় উঠেছে কিনা সে বিষয়ে গ্যারান্টী দিয়ে বলা যাবে না।

সাধারণ মানুষদের জন্য কেন্দ্র সরকার নিয়ে এলো নতুন প্রকল্প, আবেদন করলে পাওয়া যাবে এককালীন ৫ লাখ টাকা পর্যন্ত

দ্বিতীয় উপায়, নিজের ব্যাংকের পাসবুক আপডেট করা। মাস শেষের কয়েকদিন পরে ব্যাংকে গিয়ে নিজের অ্যাকাউন্ট পাসবুক আপডেট করলে সহজেই বুঝতে পারবেন যে আপনার অ্যাকাউন্টে লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পের ৫০০ বা ১০০০ টাকা ঢুকেছে কিনা। যদি টাকা ঢুকে যায় তাহলে আপনার নাম এই প্রকল্পে নথিভুক্ত করা হয়ে গিয়েছে এ বিষয়ে নিশ্চিত হতে পারবেন। যদি লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পে আবেদন করেও আপনি টাকা না পেয়ে থাকেন তাহলে নিজের নিকটবর্তী বিডিও বা এসডিও অফিসে গিয়ে যোগাযোগ করতে পারেন।

সরকারি প্রকল্প সম্পর্কিত এই রকম আরও নানান গুরুত্বপূর্ণ আপডেট পেতে আমাদের ওয়েবসাইটটি ফলো করুন এবং নীচের ডানদিকের টেলিগ্রাম আইকনে ক্লিক করে আজই জয়েন হন আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলে