ভ্রমণ

দার্জিলিঙে জারি করা হলো নতুন নিয়ম, নিয়ম ভাঙ্গলেই দিতে হবে ৫০০০ টাকা পর্যন্ত জরিমানা

ভারতবাসী বরাবরই বিভিন্ন স্থানে ঘুরতে যেতে ভালোবাসে। আর শীতকাল বরাবরই ভ্রমণের জন্য অন্যতম উপযুক্ত সময়। শীতে যেমন ভাবে পাহাড়ের সৌন্দর্য্য বেড়ে যায়, ঠিক তেমনি পাহাড়ে ঘুরতে যাওয়া নাগরিকদের সংখ্যাও তুলনামূলকভাবে সারা বছরের তুলনায় অনেকটাই বেড়ে যায়। ফলত একদিকে যেমনভাবে পাহাড়ে বসবাসকারী মানুষদের জন্য নতুন নতুন উপার্জনের পথ খুলে যায় এবং হোটেল থেকে শুরু করে হোমস্টে গুলির উপার্জন বেড়ে যায়, অর্থাৎ পাহাড়ি অঞ্চলগুলির অর্থনীতির রীতিমতো ত্বরান্বিত হয়, অন্যদিকে জনসংখ্যা বাড়ার সাথে সাথে নানানভাবে দূষণও বাড়তে থাকে। যার ফলে ক্রমে ক্রমে নিজের সৌন্দর্য হারাচ্ছে বিভিন্ন পাহাড়ি অঞ্চলগুলি।

তবে শুধু পাহাড়ের ক্ষেত্রেই যে এমনটা হয় তা নয়, প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্যের জন্য বিখ্যাত বিভিন্ন ভ্রমণ স্থানগুলিতে এরকম হয়ে থাকে। আর তাই ভ্রমণকারীদের কাছে জনপ্রিয় এই সমস্ত স্থানগুলিতে সেখানকার প্রশাসনের তরফের নানারকম আইন কার্যকরী করা হয়ে থাকে। প্রধানত বিভিন্ন ভ্রমণ স্থানের সৌন্দর্য যাতে নষ্ট না হয় এবং স্থানগুলিকে যাতে দূষণমুক্ত রাখা যায় তার জন্যই এই নিয়মগুলি কার্যকরী হওয়ার করা হয়ে থাকে। আর এবারে ভ্রমণকারীদের কাছে অন্যতম জনপ্রিয় ভ্রমণ স্থান দার্জিলিঙে এরূপ কতোগুলি নিয়ম কার্যকরী করা হলো।

আপনিও যদি এই শীতের মরশুমে দার্জিলিং ভ্রমণের কথা ভেবে থাকেন তবে আপনাকে অবশ্যই এই নতুন নিয়মগুলি সম্পর্কে জানতে হবে। কারণ আপনি যদি এই নিয়মগুলি না জেনে নিয়মবিরুদ্ধ কোনোরূপ কাজ দার্জিলিঙে করে ফেলেন তবে আপনাকেও দিতে হবে জরিমানা। ইতিমধ্যেই শোনা গিয়েছে যে, দার্জিলিং পৌরসভার তরফে কার্যকরী এই সমস্ত নিয়মগুলি ভাঙলে ৫০০ টাকা থেকে শুরু করে ৫০০০ টাকা পর্যন্ত জরিমানা দিতে হবে যেকোনো নাগরিককে। তবে এখনও পর্যন্ত অধিকাংশ নাগরিকই জানেন না দার্জিলিঙে পর্যটকদের জন্য কার্যকরী এই নতুন নিয়মগুলি কি কি? আর তাই এই পোস্টে আজ দার্জিলিঙে কার্যকরী এই নতুন নিয়মগুলি সম্পর্কে আলোচনা করা হবে।

চলুন তবে জেনে নেওয়া যাক দার্জিলিংয়ের পর্যটকদের জন্য পুরসভার তরফে কি কি নতুন নিয়ম কার্যকরী করা হলো?
ইতিমধ্যেই বিভিন্ন রিপোর্ট মারফত জানা গিয়েছে যে, এবার থেকে দার্জিলিং কে দূষণমুক্ত রাখার জন্য হামরো পার্টি পরিচালিত পুরসভার তরফে তিনটি নতুন নিয়ম কার্যকরী করা হয়েছে। আর এই তিনটি নতুন নিয়মে বলা হয়েছে যে, জনবহুল এলাকায় কোনোভাবেই সিগারেট ধরানো যাবে না। যেখানে সেখানে থুতু খেলা একেবারেই নিষিদ্ধ । ডাস্টবিন ছাড়া যেকোনো জায়গায় ময়লা ফেলা যাবে না। আইন ভাঙলেই তৎক্ষণা জরিমানা দিতে হবে নাগরিকদের। এমনকী আর্থিক জরিমানাও দিতে হতে পারে। এই নিয়মগুলি লঙ্ঘন করলে ৫০০ টাকা থেকে শুরু করে ৫ হাজার টাকা পর্যন্ত আর্থিক জরিমানা দিতে পারে যেকোনো পর্যটককে। বিগত ৫ই নভেম্বর থেকে এই নতুন নিয়ম কার্যকরী করা হয়েছে দার্জিলিঙে।

টেটের রেজাল্টে ধরা পরলো বড়োসড়ো গলদ, ফের আদালতমুখী হতে হলো পর্ষদকে

এবিষয়ে পুরসভার জঞ্জাল অপসারণ বিভাগের ভারপ্রাপ্ত কাউন্সিলর গোপাল পারিয়ার জানিয়েছেন যে, কোনোভাবেই যাতে নিয়মগুলি লঙ্ঘন না হয় তার জন্য ধারাবাহিকভাবে অভিযান চালানো হবে পুরসভার কর্মীদের তরফে। তবে এখানেই শেষ নয় শহরের জনবহুল এলাকা গুলিতে রীতিমতো নজরদারি চালানো হবে। এর পাশাপাশি কেউ নিয়ম লঙ্ঘন করলে নাগরিকরা যাতে সে ব্যাপারে পুরসভার কর্মীদের জানাতে পারেন তার জন্য একটি মোবাইল নম্বরও কার্যকরী। কেউ নিয়ম ভাঙলে ছবিসহ কোন স্পটের নাম লিখে এই মোবাইল নম্বরের মারফত নগরবাসী অভিযোগ চালাতে পারবেন। আর এই অভিযোগের ভিত্তিতেই তৎক্ষণাৎ ও স্পটে পৌঁছে পুরসভার কর্মীরা সমস্যার সমাধান করবেন।

যদিও এক্ষেত্রে যে ব্যক্তি অভিযোগ করেছেন তার নাম এবং মোবাইল নম্বর দুটোই গোপন রাখা হবে। ইতিপূর্বে পৌরসভার পক্ষ থেকে অভিযান চালিয়ে প্রকাশ্যে ধূমপান করার কারণে ১০ জন ব্যক্তিকে হাতেনাতে ধরেছেন পৌরসভার কর্মকর্তারা। ওই ১০ জন ব্যক্তির প্রত্যেককেই দিতে হয়েছে ৫০০ টাকা জরিমানা। এই ঘটনার জেরে খানিকটা হলেও সচেতন হয়েছেন পর্যটকরা। ওয়াকিবহাল মহলের জনগণ দার্জিলিং পৌরসভার তরফ গৃহীত এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন। তারা আরও আছে জানিয়েছেন যে, প্রতিদিন যাতে পৌরসভার পক্ষ থেকে এভাবেই অভিযান চালানো হয়, যাতে যেকোনো ব্যক্তিই নিয়ম ভাঙার সাহস না পান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button