আজকের দিনে পিএম কিষান প্রকল্পের নাম প্রায় সকলের মুখেই চর্চিত। কিন্তু অনেকেই এই প্রকল্প সম্পর্কে বিস্তারিত জানেন না। তাই আজকের এই প্রতিবেদনে পিএম কিষান প্রকল্প কী, এই প্রকল্পে আবেদন পদ্ধতি, বছরের কত টাকা করে পাবেন প্রভৃতি সমস্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে নীচে আলোচনা করা হলো —

পিএম কিষান যোজনা কী?
— PM Kisan প্রকল্প অর্থাৎ প্রধানমন্ত্রী কিষান সম্মান নিধি যোজনা হলো ভারতবর্ষের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী কর্তৃক চালু করা অত্যন্ত জনপ্রিয় একটি প্রকল্প যার মাধ্যমে কৃষকদের তিনটি মাসিক কিস্তিতে প্রতি বছরে মোট ৬০০০ টাকা করে আর্থিক সাহায্য প্রদান করা হয়।

প্রতি বছরের মোট তিনটি মাসিক কিস্তি –

১ম কিস্তি – ২০০০ টাকা (এপ্রিল-জুলাই মাসে দেওয়া হয়)
২য় কিস্তি – ২০০০ টাকা (আগস্ট থেকে নভেম্বর মাসের মধ্যে দেওয়া হয়)
৩য় কিস্তি – ২০০০ টাকা (ডিসেম্বর থেকে মার্চ মাসের মধ্যে দেওয়া হয়)

কারা এই প্রকল্পের জন্য আবেদন করতে পারবেন?
— ভারতবর্ষের প্রতিটি কৃষক পরিবার (পরিবার বলতে স্বামী, স্ত্রী ও অন্তত একটি সন্তান ) যাদের রাজ্যের জমির খতিয়ান অনুসারে চাষযোগ্য জমি রয়েছে, তারা প্রত্যেকেই এই প্রকল্পে আবেদনের যোগ্য।

কারা এই প্রকল্পে আবেদনের যোগ্য নন?
• যাদের প্রতিষ্ঠানমূলক জমি (যেমন কোনো ফার্ম, শিল্প কারখানা ইত্যাদি গড়ে উঠেছে এমন জমি ) রয়েছে।

• পূর্ববর্তী ও বর্তমান কেন্দ্র/রাজ্যের মন্ত্রী, লোকসভা/রাজ্যসভা/বিধানসভা/পৌরসভা/পঞ্চায়েত সদস্য কিংবা কেন্দ্র বা রাজ্য সরকারি কর্মী কেউ এই প্রকল্পে আবেদনের যোগ্য নন।

• যে সকল পেনশনপ্রাপকরা মাসে ১০,০০০ টাকার বেশি পেনশন পান। (মাল্টি টাস্কিং স্টাফ/ক্লাস IV/গ্রুপ ডি কর্মীরা বাদে)

• যারা গতবছর ইনকাম ট্যাক্স দিয়েছেন

• ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার,উকিল, চার্টার একাউটান্ট, প্রফেশনাল দক্ষতামূলক শিল্পী কেউ এই প্রকল্পে আবেদন করতে পারবেন না।

কীভাবে পিএম কিষান প্রকল্পে আবেদন করবেন?
• প্রথমে পিএম কিষান প্রকল্পের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট https://pmkisan.gov.in/ এ গিয়ে Farmers Corner অপশনে গিয়ে New Registration লেখাটিতে ক্লিক করবেন।

তারপরে

• Select Language  (যেই ভাষায় ফর্মফিল উপ করতে চান সেটি ক্লিক করবেন)

• Rural Farmer Registration / Urban Farmer Registration (আপনি গ্রামে বসবাস করলে Rural এ এবং শহরে বসবাস করলে Urban অপশন সিলেক্ট করবেন )

• Adhaar No. (আধার নম্বর)
• Mobile No. (মোবাইল নম্বর)
• Select State (নিজের রাজ্য )
• Image Text (নীচে লেখা captcha code টি হুবুহু টাইপ করবেন )
• Get OTP তে ক্লিক করবেন।

এবার আপনার দেওয়া মোবাইল নম্বরে একটি OTP চলে আসবে

• Enter OTP তে OTP টি টাইপ করবেন

• আবার নতুন captcha code টি Image Text এ হুবুহু লিখে sumbit অপশনে ক্লিক করবেন।

• এবার আপনার দেওয়া আধার কার্ড নম্বরে OTP আসবে সেটি Enter Your Adhaar Registered Mobile OTP বক্সে লিখে Verify Adhaar OTP তে ক্লিক করবেন।

তারপরে নতুন একটি পেজ ‘New Farmer Registration Form’ খুলবে। এবার আবার পরপর

• State ( রাজ্য)
• District (জেলা)
• Sub-district 
• Block (ব্লক)
• Village (গ্রাম)
• Farmer Name (আবেদনকারীর নাম)
• Gender (লিঙ্গ)
• Category (কোন কাস্ট)
• Farmer Type(কোন প্রকৃতির কৃষক)
• Select ID Type (আধার কার্ড সিলেক্ট করাই থাকবে)
• Type of Identity proof (আধার কার্ড সিলেক্ট করাই থাকবে)
• IFSC Code (যেই ব্যাংকের একাউন্ট আপনি দিতে চান তার IFSC কোড)
• Bank Name (ব্যাংকের নাম)
• Account Number ( আপনার ব্যাংকের একাউন্ট নম্বর)
• Adhaar Number (আধার কার্ড নম্বর)
• Mobile Number (মোবাইল নম্বর)
• Address (ঠিকানা)
• Pincode 
• Father/Mother/Husband Name

(ঠিকানা, পিনকোড, Father/Mother/Husband Name আধার কার্ড অনুসারে অটোমেটিক লেখা থাকবে)
• Land Registration ID (জমির রেজিস্ট্রেশন নম্বর, জমির পরচার একেবারে উপরের দিকে থাকে)

• Ration Card No. (রেশন কার্ড নম্বর)

• Date of Birth (জন্মতারিখ)

• Are you accept for PM Mandhan Yojona (মানধন যোজনায় আবেদন করতে চাইলে Yes করবেন নাহলে No সিলেক্ট করবেন)
প্রভৃতি ফিল আপ করবেন।

এবার জমি সংক্রান্ত তথ্য দেওয়ার জন্য Add অপশনে ক্লিক করে একে একে 

• Survey/Khata No. (জমির খতিয়ান নম্বর)

• Khasra/Dag No. (জমির খসড়া/দাগ নম্বর)

• Area (আপনার যত বিঘা বা যত কাঠা জমি রয়েছে তাকে অনলাইনে যেকোনো ওয়েবসাইটটের মাধ্যমে ভেক্টরে কনভার্ট করে নেবেন)

•Land Transfer Status
(যদি আপনি জমিটি ০১-০২-২০১৯ এর আগে কিনে বা উত্তরাধিকাদরে বা দানে ইত্যাদি যেকোনো উপায়ে পেয়ে থাকেন তাহলে Before 01-02-2019 অপশন সিলেক্ট করবেন এবং সেই তারিখের পরে জমি পেয়ে থাকলে After 01-02-2019 অপশন সিলেক্ট করবেন)

• Land Transfer Details (জমিটি কীভাবে পেয়েছেন তা ইংরেজিতে লিখতে হবে, দানে পেয়ে থাকলে Gift, কিনে থাকলে Buy ইত্যাদি লিখতে পারেন)

• Land Date Vesting (জমির রেজিস্ট্রেশন তারিখ)

 ইত্যাদি পূরণ করবেন।

এবার Upload Supporting Documents এ

• Land (জমির পরচার স্ক্যান )
• Adhaar Card (আধার কার্ডের স্ক্যান )
• Bank Passbook (ব্যাংকের পাসবইয়ের প্রথম পাতার স্ক্যান )

 এই তথ্যগুলো (Documents) আপলোড করে Save অপশনে ক্লিক করবেন।

এভাবে পিএম কিষাণ প্রকল্পে নতুনভাবে আবেদন করা যাবে। আপনি নিজে মোবাইলে বা কম্পিউটারে এইভাবে ফর্ম ফিল আপ করতে পারেন অথবা সাইবার ক্যাফেতে গিয়েও একই পদ্ধতিতে আবেদন করতে পারেন। আবেদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হলে কিছুদিন অপেক্ষা করতে হবে। উপরমহল থেকে ভেরিফিকেশন হয়ে গেলেই আপনি পিএম কিষান যোজনার মাধ্যমে সরাসরি আপনার ব্যাংক একাউন্টে বার্ষিক ৬০০০ টাকা করে আর্থিক সাহায্য পাবেন।

পিএম কিষান নিয়ে আরও কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য :-

★ এবছর থেকে পিএম কিষাণের টাকা পাওয়ার জন্য e-KYC করা বাধ্যতামূলক। অনলাইনে পিএম কিষানের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট https://pmkisan.gov.in/ এ গিয়ে অতি সহজেই  e-KYC করতে পারবেন।

★ আপনি টাকা পাবেন কিনা তা জানার জন্য পিএম কিষানের ওয়েবসাইটে গিয়ে Farmers Corner অপশনের মধ্যে থাকা Beneficiary List এ ক্লিক করে একে একে

• State (রাজ্য),
• District (জেলা ),
• Sub-district
• Block (ব্লক )
• ৫) Village (গ্রাম )

সিলেক্ট করে তারপরে Get Result অপশনটিতে ক্লিক করবেন।

তাহলে আপনাকে আপনার এলাকায় বসবাসকারী পিএম কিষানের পরবর্তী কিস্তির টাকা প্রাপকদের নামের একটি তালিকা দেখানো হবে। যদি ওই তালিকায় আপনার নাম থাকে তাহলে পরবর্তী মাসিক কিস্তির টাকা আপনার ব্যাংক একাউন্টে ঢুকবে।

★ যদি আপনি পিএম কিষান সম্মান নিধি প্রকল্পে আবেদনের যোগ্য না হন তা সত্ত্বেও আবেদন করে টাকা পেয়ে যাচ্ছেন তাহলে সাবধান হন। এবিষয়ে ধরা পড়লে আপনাকে সম্পূর্ণ টাকা ফেরত দিতে হবে নাহলে আপনার বিরুদ্ধে সরকারের তরফ থেকে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হতে পারে।

পিএম কিষান যোজনার অফিসিয়াল ওয়েবসাইট – https://pmkisan.gov.in/

আশা করি পিএম কিষান (PM Kisan) সম্পর্কে উপরে বিশদে আলোচনা করা এই প্রতিবেদনটি আপনার ভালো লেগেছে। এরকমই আরও নানান গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে জানতে আমাদের ওয়েবসাইটটি ফলো করুন।