আজকের এই প্রযুক্তির যুগে প্রায় সবকিছুই অনলাইনে করার চেষ্টা চলছে। সেই উদ্দেশ্যেই এবার থেকে আপনি অনলাইনেই নিজের জমি জায়গার খাজনা দিতে পারবেন। এবিষয়ে রাজ্য সরকার নিয়ে এসেছে সহজ সরল এক অনলাইন পদ্ধতি। চলুন বিস্তারিত জেনে নেওয়া যাক এই নতুন পদ্ধতি সম্পর্কে।

• অনলাইনে জমির খাজনা দেওয়ার পদ্ধতি :-
(১) প্রথমে রাজ্যের ভূমি সংস্কার দপ্তরের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট https://banglarbhumi.gov.in/ তে যাবেন।

(২) তারপরে আপনার Username ও পাসওয়ার্ড আগে থেকে তৈরী করা না থাকলে sign up এ ক্লিক করে তা করে নেবেন। Username ও পাসওয়ার্ড তৈরী হয়ে গেলে Sign In এ ক্লিক করে সেটি লিখে Login এ ক্লিক করবেন।

(৩) এরপরে Citizen Services অপশনে গিয়ে Online Application এ ক্লিক করবেন ও তারপরে Land Revenue (Khajna) Application এ ক্লিক করবেন।

(৪) এবার উপরে নিজের জেলা, ব্লক, মৌজা সিলেক্ট করবেন।

(৫) এরপরে একে একে

° Particulars of Apllicant (আবেদনকারীর নাম, বাবার নাম, ঠিকানা, মোবাইল নং, ইমেল আইডি ইত্যাদি )

° Revenue Deposition of a family (যে জমির খাজনা দিতে ইচ্ছুক তার নাম, জমির খতিয়ান নং,সেই নম্বরের অন্তর্গত জমিগুলোর প্লট নম্বর ও প্রকৃতি ইত্যাদি সিলেক্ট করতে হবে )

° Unrecorded Property Details (যদি আপনার এমন কোনো জায়গা রয়েছে যেখানকার রেজিস্ট্রি হয়েছে কিন্তু রেকর্ডে নেই সেই জমিরও খাজনা দিতে গেলে yes এ ক্লিক করে জমির বিবরণ দেবেন )

এইসব ফিলআপ করে Proceed Further এ ক্লিক করবেন।

(৬) এবারে Previous Land Revenue (Khajna) Details অপশনে যদি আপনি আগে কখনও জমির খাজনা দিয়ে থাকেন তাহলে সেই বাংলা সালটি সিলেক্ট করে রেভিনিউ রসিদ নং, তারিখ ইত্যাদি পূরণ করে Upload অপশনে ক্লিক করবেন ও খাজনার রসিদটি আপলোড করে দেবেন।

(৭) এবার নীচে captcha কোডটি হুবহু লিখে sumbit এ ক্লিক করবেন।

(৮) এবার আপনাকে Application Number টি দেখাবে যেটি ভালো করে নোট করে নেবেন। এছাড়াও জমির খাজনা বাবদ কত টাকা পেমেন্ট করতে হবে সেটিও স্ক্রিনে দেখাবে। সব দেখা হয়ে গেলে OK তে ক্লিক করবেন।

(৯) এরপরে Download Application Form অপশনে ক্লিক করে আপনার আবেদনপত্রটি আপনার ডিভাইসে ডাউনলোড হয়ে যাবে যেটি আপনি পরবর্তীকালে প্রিন্ট আউট করে নিতে পারেন।

(১০) এবারে Fee Payment অপশনে ক্লিক করলে অ্যাপ্লিকেশন নম্বর অটোমেটিক দেওয়া থাকবে। সেখানে captcha কোডটি ফিল আপ করে view তে ক্লিক করলে আবেদনকারীর নাম দেখাবে। নীচে কীভাবে পেমেন্ট করবেন যেমন – নেটব্যাঙ্কিং /ক্রেডিট কার্ড ইত্যাদি সিলেক্ট করে জমির খাজনা অনলাইনে পেমেন্ট করে দেবেন।
উল্লেখ্য, পেমেন্ট করার সময় JRN নম্বরটি নোট করে রাখবেন। এই নম্বরটি পরে পেমেন্টের স্লিপ ডাউনলোড করতে কাজে লাগবে।

ব্যাস, তাহলেই অনলাইনে জমির খাজনা দেওয়ার পদ্ধতি সম্পন্ন হলো।

• পেমেন্টের চালান কীভাবে ডাউনলোড করবেন?
(১) প্রথমে https://wbifms.gov.in/GRIPS/home.do এই ওয়েবসাইটে গিয়ে GRN Status অপশনে ক্লিক করবেন।

(২) তারপরে GRN নম্বরটি লিখে Sumbit এ ক্লিক করবেন।

(৩) তাহলে Status এর ঘরে Transaction Successful লেখাটি দেখাবে এবং নীচে Download অপশনে ক্লিক করে আপনি eChallan ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।

• জমির খাজনার রসিদ কীভাবে ডাউনলোড করবেন?
(১) প্রথমে পুনরায় https://banglarbhumi.gov.in/BanglarBhumi/Home.action এই ওয়েবসাইটে গিয়ে Citizens Service অপশনে ক্লিক করবেন।

(২) এবারে Application / Receipt Reprint অপশনে ক্লিক করে Receipt Type এ Revenue Receipt অপশনটি সিলেক্ট করে নীচে আপনার অ্যাপ্লিকেশন নম্বর, খতিয়ান নং, Captcha কোড ইত্যাদি টাইপ করে Sumbit এ ক্লিক করবেন।

তাহলে আপনার জমির খাজনার রসিদটি দেখা যাবে। এটি ডাউনলোড করে আপনার ডিভাইসে রেখে দিয়ে পরবর্তীকালে প্রিন্ট আউট করে নিতে পারেন।

• অফিসিয়াল ওয়েবসাইট – https://banglarbhumi.gov.in


এভাবেই আপনি বাড়িতে বসে সম্পূর্ণ অনলাইনেই জমির খাজনা দিতে পারবেন এবং তার রসিদও ডাউনলোড করতে পারবেন।