সরকারি প্রকল্প

কর্মচারীর চাকরি করার সময় মৃত্যু হলে EPF এর টাকা নমিনি পাবে? সরকারি নিয়ম জানুন

এবার EPF (Employees Provident Fund) এর টাকা সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ তথ্য সামনে এলো। কর্মরত অবস্থায় কর্মচারীর মৃত্যু হলে ইপিএফ এর টাকা কে পাবেন, সেই বিষয়টি বিস্তারিতভাবে জানা গেল। তবে, এক্ষেত্রে নমিনি না থাকলে হতে পারে সমস্যা। মূলত ইপিএফ এর সম্পূর্ণ অর্থ হলো এমপ্লয়ি প্রভিডেন্ট ফান্ড। এটি একটি অবসরকালীন সঞ্চয় প্রকল্প। এই ইপিএফ একাউন্টের সম্পূর্ণ রক্ষণাবেক্ষণ করে থাকে EPFO (Employees Provident Fund Organisation).

EPF Money Claim Rule as Per EPFO Guideline.

দেশের যে সমস্ত বেতনভোগী কর্মচারীর বেতন ৬৫০০ টাকার বেশি তাদের অবশ্যই EPF Account থাকা জরুরী। এক্ষেত্রে, প্রতি মাসে তার বেতনের (Salary) কিছুটা অংশ কেটে নিয়ে ইপিএফ একাউন্টে জমা করা হয় এবং নিয়োগকর্তারা কিছুটা অংশ বিনিয়োগ করে থাকেন। এরপর অবসরকালীন বয়সে সুদ সহ আসল টাকা কর্মচারীদের হাতে দেওয়া হয়।

এমপ্লয়িজ প্রভিডেন্ট ফান্ড (EPF) স্কিম

কর্মচারী ভবিষ্য তহবিল বা ইপিএফ হল বেসরকারী সেক্টরে বেতনভোগী কর্মচারীদের জন্য একটি অবসর সুবিধা স্কিম। এমপ্লয়িজ প্রভিডেন্ট ফান্ড অর্গানাইজেশন ইপিএফ পরিচালনা করে। ২০ জন বা তার বেশি কর্মী সহ যে কোনো সংস্থা বা ফার্ম এর আওতায় আসে। এমপ্লয়িজ প্রভিডেন্ট ফান্ড অর্গানাইজেশন মূলত তিনটি স্কিম পরিচালনা করে। সে গুলো হলো – ইপিএফ স্কিম ১৯৫২ (EPF Scheme), পেনশন স্কিম ১৯৯৫ (Pension Scheme), বীমা প্রকল্প ১৯৭৬ (ESI Insurance Scheme).

কর্মচারী ভবিস্য তহবিল

মূলত যে কর্মচারীরা অধীনে পড়েন তারা মূল বেতনের ১২% এবং স্কিমের প্রতি মহার্ঘ ভাতার একটি নির্দিষ্ট অবদান রাখেন। নিয়োগকর্তারও ইপিএফ স্কিমে সমান অবদান রাখতে হবে। ইপিএফও সেন্ট্রাল বোর্ড অফ ট্রাস্টিস অর্থ মন্ত্রকের সাথে পরামর্শ করার পরে প্রতি আর্থিক বছরে ইপিএফ সুদের হার নির্ধারিত হয়। ২০২৩ – ২৪ আর্থিক বছরের জন্য ইপিএফ সুদের হার (EPF Interest Rate) হল ৮.২৫%.

DA (মহার্ঘ ভাতা ও বেতন বৃদ্ধি)

EPFO স্কিম ও সুবিধা

যদি কোনো কর্মচারীর কর্মরত অবস্থায় মৃত্যু হয় তাহলে এমপ্লয়ি প্রভিডেন্ট ফান্ড অর্গানাইজেশনের (Employee Provident Fund Organisation) নিয়ম অনুযায়ী, সম্পূর্ণ টাকা কোনো ঝামেলা ছাড়াই যার নামে রয়েছে তিনি নমিনি পেয়ে যাবেন।তবে এক্ষেত্রে ইপিএফ একাউন্ট খোলার সময় অবশ্যই নমিনির নাম দিতে হবে, তাহলে কর্মরত অবস্থায় যদি কোনো কর্মচারী মারা যায় তাহলে তার নমিনি ওই টাকাটি সহজেই পেয়ে যাবে।

ব্যাংক ও পোস্ট অফিসে কত টাকা রাখলে Income Tax Notice পাবেন? গ্রাহকরা একবার জেনে নিন

ইপিএফও টাকা তোলার নিয়ম

ইপিএফ এর টাকা তুলে নেওয়ার জন্য নমিনিকে একটি নির্দিষ্ট ফর্ম ফিলাপ করে আবেদন করতে হবে। তবে, যদি কারো নামে নমিনি না থাকে বা নমিনি যদি আগেই মারা গিয়ে থাকেন তাহলে ওই ব্যক্তির বংশ পরম্পরায় যিনি উত্তরাধিকারী রয়েছেন তিনি সেই টাকাটি পাবেন। তাই এক্ষেত্রে চিন্তা করার কোনো কারণ নেই, কর্মরত অবস্থায় কর্মচারীর মৃত্যু হলে সেই টাকা অবশ্যই নমিনি বা তার পরিবারের ব্যক্তিরা পেয়ে যাবেন। কিন্তু এক্ষেত্রে অবশ্যই উল্লেখ্য, ইপিএফ এর একাউন্টে নমিনির নামটা অবশ্যই ইপিএফের একাউন্ট হোল্ডারকে দিতে হবে।
Written by Sampriti Bose.

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button