Know-the-complete-procedure-to-apply-for-driving-license-with-this-post-today

ড্রাইভিং লাইসেন্সের জন্য আবেদন করতে চান? কিন্ত কীভাবে করবেন কিছু বুঝতে পারছেন না? তাহলে আজকের খবরটি আপনার অনেক কাজে লাগবে। মনে রাখবেন প্রথমেই ড্রাইভিং লাইসেন্সের জন্য আবেদন করা যায় না। ড্রাইভিং লাইসেন্স পেতে চাইলে আপনাকে প্রথমে লার্নার লাইসেন্সের জন্য আবেদন করতে হবে। লার্নার লাইসেন্স পাওয়ার ছয় মাসের মধ্যে আপনাকে ড্রাইভিং লাইসেন্সের জন্য আবেদন করতে হবে। আপনি যদি এখনও লার্নার লাইসেন্সের জন্য আবেদন না করে থাকেন তাহলে নিম্নলিখিত লিংকে ক্লিক করে পুরো পদ্ধতি জেনে নিন। লার্নার লাইসেন্স পাওয়া হয়ে গেলে নীচের দেওয়া বিস্তারিত পদ্ধতিটির মাধ্যমে ড্রাইভিং লাইসেন্সের জন্য আবেদন করুন।

কীভাবে ড্রাইভিং লাইসেন্সের জন্য আবেদন করবেন?

১. প্রথমে parivahan.gov.in -এই ওয়েবসাইটে যাবেন।
২. এবার Drivers/ Learners License -এই অপশনের More অপশনে ক্লিক করবেন।
৩. এরপরে নিজের রাজ্যের নাম সিলেক্ট করে Apply for Driving License অপশনে ক্লিক করবেন।
৪. তারপরে Continue অপশনে ক্লিক করবেন এবং নিজের লার্নার লাইসেন্স নম্বর এবং জন্মতারিখ লিখে Ok অপশনে ক্লিক করবেন।
৫. এবার নীচের দিকে স্ক্রল করে Selected Class of Vehicles for issue of New DL -অপশনে আপনি যে ধরনের যানবাহনের জন্য ড্রাইভিং লাইসেন্সের আবেদন করতে চান সেটি সিলেক্ট করে নীচের অ্যারো চিহ্নে ক্লিক করে Submit অপশনে ক্লিক করবেন।
৬. এরপরে Next -এ গিয়ে Proceed অপশনে ক্লিক করবেন এবং তারপরে দুটো ডকুমেন্ট আপলোড করতে হবে। যথা – বাসস্থানের প্রমাণপত্র হিসেবে পাসপোর্ট / ভোটার কার্ড / আধার কার্ড / ব্যাংকের পাসবুক ইত্যাদি ডকুমেন্টগুলোর মধ্যে যে কোনো একটি এবং আপনার লার্নার লাইসেন্স।
৭. প্রথমে Address প্রুফ আপলোড করার পরে Confirm -এ ক্লিক করবেন এবং একই পদ্ধতিতে আপনার লার্নার লাইসেন্স আপলোড করে দেবেন এবং তারপরে Next অপশনে ক্লিক করবেন।
৮. এবার আপনাকে ফি পেমেন্ট করতে হবে। সেজন্য Proceed অপশনে ক্লিক করবেন।
৯. তাহলে আপনাকে কত টাকা পেমেন্ট করতে হবে তা আপনি স্ক্রিনে দেখতে পাবেন। নীচের দিকে স্ক্রল করে GRIPS West Bengal অপশনটি সিলেক্ট করে নীচে দেওয়া ক্যাপচা কোডটি টাইপ করবেন এবং তারপরে Pay Now অপশনে ক্লিক করবেন।
১০. পরের পেজের নীচের দিকের Terms -এ টিক দিয়ে Proceed for Payment অপশনে ক্লিক করবেন এবং তারপরে আপনাকে ড্রাইভিং লাইসেন্সে আবেদনের জন্য যত টাকা ফি হিসেবে দিতে হবে তা অনলাইনে পেমেন্ট করে দেবেন।

আপনার আধার কার্ডটি আসল তো? চেক করে নিন মিনিটের মধ্যে

১১. পেমেন্ট হয়ে যাওয়ার পরে পরবর্তী পেজটির একটি স্ক্রিনশট নিয়ে রাখবেন এবং তারপরে Click Here to Print Receipt অপশনে ক্লিক করবেন।
১২. তারপরে প্রদত্ত ক্যাপচা কোডটি লিখে Print Receipt অপশনে ক্লিক করবেন। তাহলে আপনার পেমেন্ট রিসিপ্টটি মোবাইলে ডাউনলোড হয়ে যাবে।
১৩. এরপরে আবার ওয়েবসাইটের হোম পেজে এসে Drivers/ Learners License -এর More অপশনে ক্লিক করবেন।
১৪. তারপরে নিজের রাজ্য সিলেক্ট করে উপরের মেনু বারে Appointments -এ যাবেন। তারপরে DL Test Slot Booking অপশনে ক্লিক করবেন।
১৫. এরপরে আপনার অ্যাপ্লিকেশন নম্বর বা লার্নার লাইসেন্স নম্বরের মধ্যে যে কোনো একটি সিলেক্ট করে সেই নম্বরটি লিখবেন এবং তার সাথে আপনার জন্মতারিখ ও ক্যাপচা কোডটি লিখে Submit -এ ক্লিক করবেন।
১৬. এরপরে নীচের দিকে স্ক্রল করে Select COVs -এ আপনি যে ধরনের যানবাহনের জন্য ড্রাইভিং লাইসেন্সের আবেদন করছেন তা সিলেক্ট করে নিয়ে Proceed to Book অপশনে ক্লিক করবেন।
১৭. এবার স্ক্রিনে আপনাকে একটি ক্যালেন্ডার দেখাবে। যে তারিখগুলো সবুজ রঙে লেখা থাকবে সেইদিনগুলো ফাঁকা রয়েছে এবং আপনি তার মধ্যে কোনো একটি দিনে স্লট বুক করতে পারেন।
১৮. এবার যে তারিখে পরীক্ষা দিতে চান তা সিলেক্ট করে নীচে Book Slot অপশনে ক্লিক করবেন এবং তারপরে পরীক্ষা দেওয়ার সময়ও সিলেক্ট করে নেবেন।
১৯. সবকিছু হয়ে গেলে ড্রাইভিং লাইসেন্সের জন্য আপনার অনলাইন আবেদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়ে যাবেন এবং আপনি সেই নির্দিষ্ট তারিখে ও সময়ে RTO অফিসে গিয়ে ড্রাইভিং লাইসেন্স টেস্ট দিতে পারবেন।
২০. উক্ত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হলে আপনি নিজের ড্রাইভিং লাইসেন্স পেয়ে যাবেন।

ওয়েবসাইট – LINK

এই রকম আরও নানান গুরুত্বপূর্ণ খবর পেতে আমাদের ওয়েবসাইটটি ফলো করুন এবং নীচের ডানদিকের টেলিগ্রাম আইকনে ক্লিক করে আজই জয়েন হন আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলে