When-5G-will-come-to-India-in-detail-Know-in-details

আপনি কি 5G নেটওয়ার্কের জন্য অপেক্ষায় রয়েছেন? তবে এই খবরটি আপনার জন্য। যে সকল ভারতীয়রা 5G নেটওয়ার্কের জন্য অপেক্ষায় রয়েছেন তাদের জন্য রয়েছে দারুণ সুখবর। বর্তমানে আমাদের দেশে প্রায় কয়েক শত কোটি ওয়ারলেস ইউজার রয়েছেন, যার জেরে ভারত এখন বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম ওয়ারলেস মার্কেট। আর এই এত কোটি ইউজার এবং এত বড় মার্কেটের কথা মাথায় রেখেই ভারত সরকারের পক্ষ থেকে 5G স্পেকট্রামের নিলামের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। আর তাতেই রীতিমতো খোশমেজাজে রয়েছেন 5G নেটওয়ার্কের জন্য অপেক্ষারত ইউজাররা।

ভারত সরকারের তরফে ঘোষণা করা হয়েছে, আগামী ২৬ শে জুলাই থেকে ভারতে 5G স্পেকট্রামের নিলাম শুরু হতে চলেছে এবং তা কিছুদিন পর্যন্ত স্থায়ী হবে। সুতরাং ভারতে সুপারফাস্ট 5জি নেটওয়ার্ক আসতে চলেছে আর মাত্র কয়েক সপ্তাহের ব্যবধানে। এই 5G স্পেকট্রামের নিলামে মুকেশ আম্বানির রিলায়েন্স জিও, গৌতম আদানির কোম্পানি সহ দেশের সুপরিচিত টেলিকম কোম্পানিগুলি অংশগ্রহণ করতে চলেছে। আর আজ আমরা আলোচনা করতে চলেছি, ২৬ শে জুলাইয়ের পর 5G সিম কিভাবে পাবেন আপনারা, 5G এর ক্ষেত্রে রিচার্জপ্ল্যান গুলি কিভাবে কার্যকরী হবে, কোন শহরগুলিতে সর্বপ্রথম 5G নেটওয়ার্ক উপলব্ধ হবে ইত্যাদি চমকপ্রদ তথ্যগুলি।

চলুন তবে 5G নেটওয়ার্কের নিলাম এবং তার প্রস্তুতি সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেওয়া যাক:-
বিভিন্ন রিপোর্ট অনুসারে, ভারত সরকারের পক্ষ থেকে ২৬ শে জুলাই থেকে ভারতে 5G স্পেকট্রামের নিলামের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। এর পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী কার্যালয় বিভাগ (PMO) এর তরফেও ১৫ ই আগস্টের মধ্যে ভারতে 5G নেটওয়াক লঞ্চ করার জন্য অনুমতি দেওয়া হয়েছে। 5G স্পেকট্রামের এই নিলামে রিলায়েন্স জিও, এয়ারটেল, ভোডাফোন আইডিয়া সহ ভারতের সুপরিচিত টেলিকম কোম্পানি গুলির পাশাপাশি গৌতম আদানের কোম্পানিও অংশগ্রহণ করতে চলেছে। বিভিন্ন রিপোর্ট অনুসারে মনে করা হচ্ছে, 5G নেটওয়ার্কের নিলামিতে বেশ কিছু ফ্রিকোয়েন্সি ব্যান্ডের দাম চূড়ান্ত সীমায় উঠতে চলেছে, আর তাই আবেদনকারীদের ১৯ শে জুলাইয়ের মধ্যে তাদের আবেদন ফিরিয়ে নেওয়ার সুযোগও দেওয়া হয়েছে। আশা করা হচ্ছে, এই নিলাম শেষ হওয়ার পরই প্রধানমন্ত্রী ১৫ ই আগস্ট 5G নেটওয়ার্ক এবং এর সার্ভিস সম্পর্কে ঘোষণা করতে চলেছেন।

আবেদন করুন প্রধানমন্ত্রী ফ্রি সেলাই মেশিন যোজনায়, এবং পেয়ে যান কেন্দ্র সরকারের তরফ থেকে ফ্রীতে সেলাই মেশিন

কোন শহর গুলিতে প্রথম 5G নেটওয়ার্কের সুবিধা পাওয়া যাবে:-
বেশিরভাগ গ্রাহকদের মধ্যেই জল্পনা রয়েছে ভারতে 5G নেটওয়ার্ক লঞ্চ হওয়ার পর কোন শহরগুলিতে তা সর্বপ্রথম উপলব্ধ হতে চলেছে। যদিও ডিপার্টমেন্ট অফ টেলিকমিউনিকেশন (DoT) এর পক্ষ থেকে অনেক আগেই জানানো হয়েছিলো 5G নেটওয়ার্ক লঞ্চ হবার পর ভারতের কোন ১৩টি শহরে সর্বপ্রথম এর সুবিধা পাওয়া যাবে। তবুও অনেকের মনেই এখনো এ বিষয়ে জল্পনা রয়ে গেছে। চলুন তবে দেখে নেওয়া যাক, ১৫ ই আগস্টের পর কোন কোন শহরে 5G নেটওয়ার্কের সুবিধা উপলব্ধ হতে চলেছে:-
১. আহমেদাবাদ, ২. বেঙ্গালুরু, ৩. চন্ডিগড়, ৪. গান্ধীনগর, ৫. হায়দ্রাবাদ, ৬. জামনগর, ৭. কলকাতা, ৮. মুম্বাই, ৯. দিল্লি, ১০. পুনে, ১১. লখনউ, ১২. গুরগাঁও, ১৩. চেন্নাই

• কোন কোম্পানির তরফে ভারতে প্রথম 5G নেটওয়ার্কের সার্ভিস প্রদান করা হবে:-
যদিও ডিপার্টমেন্ট অফ টেলিকমিউনিকেশনের তরফে অফিসিয়াল ভাবে এখনো জানানো হয়নি কোন টেলিকম কোম্পানির পক্ষ থেকে প্রথমবার ভারতে 5G নেটওয়ার্কের সার্ভিস প্রদান করা হবে। এক্ষেত্রে ভারতের সবচেয়ে সুপরিচিত তিনটি টেলিকম কোম্পানি রিলায়েন্স জিও, ভোডাফোন আইডিয়া এবং এয়্যারটেল এই নির্দিষ্ট ১৩ টি শহরে তাদের টেস্টিং এর প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ করে রেখেছে।

• আপনারা কিভাবে 5G সিমকার্ড পাবেন:-
সাধারণভাবেই বোঝা যাচ্ছে যে, 5G নেটওয়ার্ক ব্যবহার করার জন্য ভারতের সাধারণ নাগরিকদের কিনতে হবে 5G সিমকার্ড। অনেকেই মনে করছেন, এই 5G সিম কার্ড বর্তমানে বহুল প্রচলিত 4G সিম কার্ডে তুলনায় ভিন্ন হতে চলেছে। তবে বিভিন্ন রিপোর্ট অনুসারে প্রাথমিকভাবে অনুমান করা হচ্ছে, 5G নেটওয়ার্ক ইউজ করার জন্য গ্রাহকদের নতুন সিমকার্ড নাও কিনতে হতে পারে। যদিও এ ব্যাপারে এখনো অফিশিয়ালভাবে কিছুই জানানো হয়নি টেলিকম কোম্পানিগুলির তরফে।

• 5G ব্যবহারের ক্ষেত্রে আপনাদের কি নতুন ফোন কিনতে হবে:-
ওয়াকিবহাল মহলের মতে, 5G সিমকার্ড ব্যবহারের জন্য গ্রাহকদের অবশ্যই 5G ফোন কিনতে হবে, নয়তো তারা এই 5G নেটওয়ার্কের সুবিধা নিতে পারবেন না। এছাড়াও মনে করা হচ্ছে, এই 5G ফোনে 5G ছাড়াও 4G, 3G কিংবা 2G নেটওয়ার্ক ব্যবহার করা যাবে কিন্তু 4G ফোন ব্যবহারকারীরা 5G সিম কার্ড কিংবা নেটওয়ার্ক ব্যবহারের সুবিধা 4G ফোনে পাবেন না।

টিকিট বাতিল নিয়ে নয়া নিয়ম আনলো ভারতীয় রেল, এবার টিকিট বাতিলের জন্য লাগবেনা চার্জ

• 5G সার্ভিসের জন্য কতো খরচ হবে আপনাদের:-
5G নেটওয়ার্ক ভারতবর্ষে লঞ্চ হওয়ার পূর্বেই ভারতীয় নাগরিকদের মধ্যে 5G সার্ভিসের খরচ নিয়ে রীতিমতো জল্পনা শুরু হয়ে গেছে। কারো কারো মতে 5G সার্ভিস সাধারণ মানুষের ধরাছোঁয়ার বাইরে হতে চলেছে, আবার কারোর মতে 5G নেটওয়ার্ক নিয়েও টেলিকম কোম্পানিগুলির মধ্যে প্রতিযোগিতা শুরু হতে চলেছে। যদিও ইতিপূর্বে টেলিকম মিনিস্টার তার বয়ানে জানিয়েছিলেন, ভারতের ক্ষেত্রে 5G নেটওয়ার্কের দাম সবচেয়ে কম হতে চলেছে। কিন্তু বিশিষ্ট ব্যক্তিদের মতে সমগ্র বিশ্বের তুলনায় ভারতে 5G নেটওয়ার্কের দাম কম হলেও তা বর্তমানে ভারতে বহুল প্রচলিত 4G নেটওয়ার্কের তুলনায় বেশি হতে চলেছে।

যদিও 5G নেটওয়ার্কের মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে অনেক আগেই সংকেত দিয়েছিলেন এয়ারটেলের কর্ণধার সুনীল ভারতী। তিনি সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছিলেন যে, অ্যাভারেজ রেভিনিউ পার ইউজার যথেষ্ট কম। ভারতের ক্ষেত্রে অ্যাভারেজ রেভিনিউ পার ইউজার প্রায় ১৫০ টাকা, কিন্তু তিনি এটিকে ৬০০ টাকার কাছাকাছি নিয়ে যেতে চান। আর অ্যাভারেজ রেভিনিউ পার ইউজার বাড়ানোর ক্ষেত্রে এয়্যারটেল এর মূল অস্ত্র হতে চলেছে 5G নেটওয়ার্ক। এর পাশাপাশি এও মনে করা হচ্ছে, 5G নেটওয়ার্ক নিলাম এর ক্ষেত্রে যথেষ্ট মোটা অংকের টাকা ব্যয় করতে হবে টেলিকম কোম্পানিগুলিকে আর এই খরচ টেলিকম সংস্থাগুলি 5G সার্ভিস প্রদানের সময় গ্রাহকদের থেকেই উসুল করে নেবে।