অন্যান্য

বিদ্যুৎ ব্যবস্থায় আমূল পরিবর্তন এনে কার্যকরী হতে চলেছে স্মার্ট মিটার, জেনে নিন বিস্তারিত

ডিজিটালাইজেশনের খাতিরে এখন সমস্ত কিছুই স্মার্ট, তা সে স্মার্ট ফোন কিংবা ফ্রিজ অথবা এসি। তবে এবারে পশ্চিমবঙ্গের বিদ্যুৎ ব্যবস্থায় আমূল পরিবর্তন এনে চালু করা হতে চলেছে 4G প্রযুক্তিসম্মত স্মার্ট মিটার। কিন্তু অধিকাংশ নাগরিক এখনও পর্যন্ত জানেনা কি এই স্মার্ট মিটার, কিভাবে স্মার্ট মিটার কাজ করবে কিংবা স্মার্ট মিটারের দ্বারা কি কাজ হবে। আর তাই এই স্মার্ট মিটার কার্যকরী হওয়ার সংবাদ জনসমক্ষে আসার পরেই জনসাধারণের মধ্যে রীতিমত ধন্ধের সৃষ্টি হয়েছে। আর তাই আজ আমরা সকলে সুবিধার্থে আপনাদের জন্য স্মার্ট মিটার সম্পর্কিত বিস্তারিত খবর নিয়ে হাজির হয়েছি।

চলুন তবে জেনে নেওয়া যাক কি এই স্মার্ট মিটার ?
বিদ্যুৎ বিল নিয়ে বারংবারই গ্রাহকদের মধ্যে নানা প্রকার অভিযোগের গুঞ্জন শোনা যায়। অনেকাংশে দেখা যায়, বিদ্যুৎ বিভাগের কর্মীদের গলদের কারণে অনেক গ্রাহককে অতিরিক্ত বিল দিতে হয়। যার কারণে বারেবারে গ্রাহক অসন্তোষের মুখে পড়তে হয় বিদ্যুৎ বিভাগকে। তবে এবারের সেই সমস্ত সমস্যারও সমাধান এসে হাজির। এসমস্ত সমস্যার সম্মুখীন না হতে হয় তার জন্যই 4G প্রযুক্তিসম্মত স্মার্ট মিটার কার্যকারী করা হবে। বাড়িতে বাড়িতে ইলেকট্রিক মিটারের পরিবর্তে এই স্মার্ট মিটার বসানো হবে, যাতে বিদ্যুৎ বিল প্রদানের প্রক্রিয়াটি আরও সহজ এবং নির্ভুল হবে।

যদিও স্মার্ট মিটারের উদ্যোগ এই প্রথম নয়, এর আগেও স্মার্ট মিটার কার্যকরী করা নিয়ে এর আগেও কেন্দ্র সরকারের পক্ষ থেকে উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে এবং ইলেকট্রিক মিটার পরিবর্তে 4G প্রযুক্তিসম্মত স্মার্ট মিটার কার্যকরী করার জন্য সাওয়াল করা হয়েছে। আশা করা হচ্ছে, আগামী কিছুদিনের মধ্যেই বিদ্যুৎ ব্যবস্থায় বিপ্লব এনে ইলেকট্রিক মিটারের পরিবর্তে বাড়িতে বাড়িতে আসতে চলেছে স্মার্ট মিটার।

PFMS স্ট্যাটাস চেক করার পদ্ধতিতে আনা হলো বিরাট পরিবর্তন, কিভাবে PFMS স্ট্যাটাস চেক করবেন জেনে নিন।

কিভাবে কাজ করবে স্মার্ট মিটার ?
4G প্রিপেইড ইলেকট্রিক মিটারের কাজের পদ্ধতি হবে অনেকটাই মোবাইলের সিম কার্ডের রিচার্জ প্ল্যানের মতো। মোবাইলের রিচার্জের মতোই আপনিও নির্দিষ্ট সময়ের জন্য কতোটা পরিমাণ বিদ্যুৎ প্রয়োজন তা অনুসারে রিচার্জ করিয়ে নিলেই আপনার সমস্ত চিন্তার অবসান হবে। এমনকী আপনি আপনার প্রয়োজন অনুসারে রিচার্জ করতে পারবেন। ফলত আপনার পকেটেও টান পড়বে না। এর পাশাপাশি প্রতিমাসে লম্বা লাইনে দাঁড়িয়ে বিল দেওয়ার চিন্তা থেকেও মুক্তি মিলবে।

তবে শুধু গ্রাহকদের সুবিধার নয় সুবিধা রয়েছে বিদ্যুৎ দপ্তরেরও। স্মার্ট মিটার চালু করা হলে যাবতীয় কারচুপি, জালিয়াতি বন্ধ হবে। এমনকী বিদ্যুৎ ছুটির সমস্যা থেকে মুক্তি মিলবে। এখানেই শেষ নয়, এ সমস্ত কিছুর সাথেই যেসকল পরিবারগুলি দীর্ঘদিন ধরে বিদ্যুৎ বিল দেয়নি তাদের বাড়িতে গিয়ে পাওয়ার কানেকশন বিচ্ছিন্ন করার প্রয়োজনও থাকবে না। এমনকী এতোদিন ধরে বারবার বিদ্যুৎ দপ্তরকে কম ইউনিট সত্বেও অধিক বিল চার্জ করার যে অভিযোগের মুখোমুখি হতে হয়েছে তা থেকে মুক্তি মিলবে এই ইলেকট্রিক মিটারের কারণে।

কবে থেকে স্মার্ট মিটার কার্যকরী হবে ?
ইতিমধ্যেই উত্তরপ্রদেশে এই স্মার্ট মিটার কার্যকরী হয়েছে। তবে পশ্চিমবঙ্গে কার্যকরী হতে এখনও খানিকটা সময় লাগবে। ইতিমধ্যে পশ্চিমবঙ্গ জুড়ে স্মার্ট মিটারের কার্যক্রম শুরু করার জন্য সার্ভে শুরু করা হয়েছে। আশা করা হচ্ছে, আগামী কিছুদিনের মধ্যেই স্মার্ট মিটার পশ্চিমবঙ্গের সমস্ত বাড়িতে পৌঁছে যাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button