বিনিয়োগ

HDFC ব্যাঙ্কের সুদের হার বেড়ে হলো দ্বিগুন, টাকা রাখলেই পাওয়া যাবে মোটা অঙ্কের সুদ

দেশজুড়ে মানুষ মেতে উঠেছে দীপাবলি কিংবা দিওয়ালিতে। আর তাই সমগ্র ভারতজুড়ে খুশির আবহ। আর এই উৎসবের আমেজে ভারতের একটি বিশেষ ব্যাংকের তরফে সুদের হার সংক্রান্ত এমন একটি আপডেট প্রকাশ করেছে, যাতে আখেরে সাধারণ মানুষ লাভবান হতে চলেছেন। এই পূজার মরশুমে দেশবাসীর জন্য ওই বিশেষ ব্যাংকের সুদের হার সংক্রান্ত এই নতুন আপডেট যেনো এক উপহার। তবে আপনি কি জানেন যে কোন বিশেষ ব্যাংকের তরফে সুদের হার সংক্রান্ত এই নতুন আপডেট ঘোষণা করা হয়েছে? যদি না জেনে থাকেন তবে আজকের এই পোস্টটি আপনার জন্য। আজ আমরা সকলের সুবিধার্থে এই পোস্টে ওই বিশেষ ব্যাংকের সুদের হার সম্পর্কিত নতুন আপডেট সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য নিয়ে হাজির হয়েছি।

চলুন তবে জেনে নেওয়া যাক ভারতের কোন বিশেষ ব্যাংকের তরফে সুদের হার সংক্রান্ত কোন আপডেট সামনে আনা হয়েছে?
এই দীপাবলীর আবহে ভারতের যথেষ্ট জনপ্রিয় ব্যাংক HDFC ব্যাংকের তরফে সুদের হার সংক্রান্ত বিশেষ আপডেট প্রকাশ করা হয়েছে। HDFC ব্যাংকের পক্ষ থেকে প্রকাশিত তথ্য অনুসারে জানা গিয়েছে যে, নাগরিকদের ফিক্সড ডিপোজিট এবং রেকারিং ডিপোজিটের উপর সুদের হার বৃদ্ধি করা হয়েছে। তবে এখানেই শেষ নয়। বয়স প্রাপ্ত নাগরিকদের ক্ষেত্রে সাধারণ নাগরিকদের তুলনায় অধিক হারে সুদ বৃদ্ধি করা হয়েছে। বিগত বুধবার এই তথ্য সামনে আনা হয়েছে HDFC ব্যাংকের তরফে এবং বুধবার থেকেই এই নতুন সুদের হার কার্যকরী করা হয়েছে।

ফিক্সড ডিপোজিটের ক্ষেত্রে নতুন সুদের হার কতো? HDFC ব্যাংকে তরফে প্রকাশিত তথ্য অনুসারে জানা গিয়েছে যে, ২ কোটি টাকার চেয়ে কম অ্যামাউন্টের ফিক্সড ডিপোজিটের ক্ষেত্রেই নতুন সুদের হার প্রযোজ্য হবে এবং বর্তমান সুদের হারের চেয়ে ৫০ বেসিস পয়েন্ট বৃদ্ধি করা হয়েছে, যার ফলে গ্রাহকরা তাদের আমানতের ম্যাচুরিটি ৭ দিন থেকে ১০ বছরের মধ্যে তাদের আমানতের পরিমাণ এবং জমা করার সময়সীমা অনুসারে ৩ শতাংশ থেকে ৬.২৫ শতাংশ হারে সুদ পাবে। তবে এখানেই শেষ নয়, প্রবীণ নাগরিকদের ক্ষেত্রে রয়েছে আরও বিশেষ উপহার। HDFC ব্যাংকে তরফে প্রবীর নাগরিকদের জন্য সাধারণ নাগরিকদের তুলনায় সুদের হার আরও ৫০ বেসিস পয়েন্ট অধিক বাড়ানো হয়েছে। ফলত HDFC ব্যাংকের সমস্ত বয়সপ্রাপ্ত গ্রাহকরা তাদের জমা করা আমানতের পরিমাণ এবং জমা করার সময়ের উপর ভিত্তি করে আমানতের ম্যাচিউরিটির ৭ দিন থেকে শুরু করে ১০ বছরের মধ্যে ৩ শতাংশ থেকে শুরু করে ৬.৯৫ শতাংশ পর্যন্ত হারে সুদ পাবেন।

একবার বিনিয়োগ করলেই বছর শেষে হাতে পাবেন ৫৯,৪০০ টাকা, পোস্ট অফিসের নতুন স্কিম, জেনে নিন এখনই

HDFC ব্যাংকের তরফে প্রকাশিত ফিক্স ডিপোজিটের ক্ষেত্রে নতুন সুদের হার গুলি হলো:-
১. ৭-১৪ দিনের জন্য জমা করা আমানতের ক্ষেত্রে ৩ শতাংশ।
২. ১৫ থেকে ২৯ দিনের জন্য জমা করা আমানতের ক্ষেত্রে ৩ শতাংশ।
৩. ৩০-৪৫ দিনের জন্য জমা করা আমানতের জন্য ৩.৫০ শতাংশ হারে সুদ দেওয়া হবে।
৪. ৪৫ থেকে ৬০ দিনের জন্য জমা করা আমানতের ক্ষেত্রে নতুন করে ৪ শতাংশ হারে সুদ প্রদান করা হবে।
৫. ৬১ দিন থেকে শুরু করে ৮৯ দিনের জন্য জমা করা অ্যামাউন্টের ক্ষেত্রে ৪.৫০ হারে সুদ কার্যকরী করা হবে।
৬. ৯০ দিন থেকে ৬ মাস পর্যন্ত সময়কালের জন্য জমাকৃত রাশির উপরে ৪.৫ শতাংশ হারে সুদ দেওয়া হবে।
৭. ৬ মাস ১ দিন থেকে ৯ মাস সময়ের জন্য জমা করা আমানতের ক্ষেত্রে ৫.২৫ শতাংশ হারে সুদ দেওয়া হবে।
৮. ৯ মাস এক দিন থেকে শুরু করে ১ বছর পর্যন্ত সময়ের জন্য জমাকৃত অর্থের উপরে ৫.৫০ শতাংশ হারে সুদ প্রদান করা হবে।
৯. ১ বছর থেকে ১৫ মাস সময়ের জন্য জমা করা অর্থের উপরে ৬.১০ শতাংশ হারে সুদ দেওয়া হবে বলেই জানা গিয়েছে।
১০. ১৫ মাস থেকে শুরু করে ১৮ মাস পর্যন্ত সময়কালের জন্য জমা করা রাশির উপরে ৬.১৫ শতাংশ হারের সুদ কার্যকরী করা হবে।
১১. ১৮ মাস থেকে ২১ মাস পর্যন্ত সময়ের জন্য জমাকৃত অর্থের ওপরে ৬.৫ শতাংশ হারে সুদ দেওয়া হবে।
১২. ২১ মাস থেকে শুরু করে ২ বছর পর্যন্ত সময়কালের জন্য জমা করা রাশির ক্ষেত্রে ৬.১৫ শতাংশ হারে সুদ প্রদান করা হবে।
১৩. ২ বছর ১ দিন থেকে ৩ বছর পর্যন্ত সময়ের জন্য জমা করা অর্থের ওপর সুদ দেওয়া হবে ৬.২৫ শতাংশ হারে।
১৪. ৩ বছর ১ দিন থেকে পাঁচ বছর পর্যন্ত সময়কালের জন্য জমা করা আমানতের ওপর সুদ দেওয়া হবে ৬.২৫ শতাংশ হারে।
১৫. ৫ বছর ১ দিন থেকে শুরু করে ১০ বছর পর্যন্ত সময়ের জন্য জামাকৃত রাশির উপরে ৬.২০ শতাংশ হারে সুদ প্রযোজ্য হবে।

রেকারিং ডিপোজিটের ক্ষেত্রে নতুন সুদের হার কতো?
তবে শুধুমাত্র ফিক্সড ডিপোজিটের ক্ষেত্রে নয় রেকারিং ডিপোজিটের ক্ষেত্রেও সুদের হার পরিবর্তন করা হয়েছে HDFC ব্যাংকের তরফে। এক্ষেত্রে ৬ মাস থেকে শুরু করে ১২০ মাস পর্যন্ত সময়ের জন্য জমা করা আমানতের ওপর ৪.৫০ শতাংশ থেকে ৬.২৫ শতাংশ হারে সুদ ধার্য করা হয়েছে।

HDFC ব্যাংকের পক্ষ থেকে ফিক্সড ডিপোজিট এবং রেকারিং ডিপোজিটের উপরে এই নতুন সুদের হার কার্যকরী হওয়ায় যারপরনাই খুশি সাধারণ মানুষ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button