সরকারি প্রকল্প

Lakshmir Bhandar : লক্ষ্মীর ভাণ্ডার প্রকল্পে নতুন আবেদন কবে থেকে শুরু?

রাজ্যের অসংখ্য মহিলাদের জন্য এসে গেল বড়ো সুখবর। রাজ্যে ফের শুরু হতে চলেছে লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পের (Lakshmir Bhandar) জন্য আবেদন প্রক্রিয়া। এখনো যারা লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পের জন্য আবেদন করেননি তাদের অতি দ্রুত আবেদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। মানবিক মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Mamata Banerjee) রাজ্যের মেয়েদের জন্য প্রচুর প্রকল্প চালু করেছেন। যার মধ্যে অন্যতম হলো লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্প (Government of West Bengal).

Government of West Bengal Lakshmir Bhandar Apply 2024.

প্রতি মাসে বাংলার মহিলাদের একাউন্টে সরাসরি ১০০০ টাকা থেকে ১২০০ টাকা পর্যন্ত দেওয়া হয় রাজ্য সরকারের তরফ থেকে। এই টাকা বর্তমানে পশ্চিমবঙ্গের মা বোনদের হাত খরচের টাকা হয়ে দাঁড়িয়েছে। অনেকে আবার সংসার খরচ পর্যন্ত চালান। আগে এই Lakshmir Bhandar অধীনে রাজ্য সাধারণ শ্রেণি মহিলাদের ৫০০ টাকা এবং তপশিলি জাতি ও উপজাতি মহিলাদের হাজার টাকা করে দেওয়া হতো। তবে সেই টাকা এখন বৃদ্ধি করা হয়েছে।

লক্ষ্মীর ভাণ্ডার নতুন আবেদন ২০২৪

বর্তমানে লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পের (Lakshmir Bhandar) অধীনে সাধারণ শ্রেণীর মহিলাদের ১০০০ টাকা এবং তপশিলি জাতি ও উপজাতির মহিলাদের ১২০০ টাকা করে দেওয়া হয়। তবে রাজ্যে এখনো অনেকেই রয়েছেন যারা লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পের জন্য আবেদন করেননি। এবার তাদের জন্য এসে গেল বড় সুখবর। চলতি বছরের জন্য লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পে আবেদন শুরু হয়ে গিয়েছে।

দুয়ারে সরকার ক্যাম্পে লক্ষ্মীর ভাণ্ডার আবেদন

প্রতি বছরের মতো এই বছরও দুয়ারে সরকারের শিবির থেকে Lakshmir Bhandar প্রকল্পে আবেদন করতে পারবেন বাংলার মা বোনেরা। জানা গিয়েছে, জুলাই মাসের প্রথম সপ্তাহ থেকে এই প্রকল্পের আবেদন শুরু হতে পারে। তাই লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পে নতুন করে আবেদন করতে চাইলে কিংবা কোন কিছু সমস্যার সমাধান করার থাকলে অবশ্যই দুয়ারে সরকারের ক্যাম্পে (Duare Sarkar Camp) গিয়ে আধিকারিকদের কাছে সাহায্য গ্রহণ করতে হবে আবেদনকারীকে।

লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পে আবেদন করার শর্ত

1) পশ্চিমবঙ্গ সরকারের চালু করা এই Lakshmir Bhandar শুধুমাত্র এই রাজ্যের মহিলারা আবেদন করতে পারবেন।
2) পশ্চিমবঙ্গের স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে আবেদনকারী মহিলাদের।
3) বয়স হতে হবে ২৫ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে।
4) সরকারি কাজের সঙ্গে যুক্ত মহিলারা এই প্রকল্পের আবেদন করতে পারবেন না।
5) আবেদনকারী মহিলার স্বাস্থ্য সাথী কার্ড থাকা বাঞ্ছনীয়।

লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পের আবেদন করার নথিপত্র

  • আধার কার্ড।
  • স্বাস্থ্য সাথী কার্ড।
  • প্রার্থীর ইনকাম সার্টিফিকেট ও রেসিডেন্সিয়াল সার্টিফিকেট।
  • SC/OBC কার্ড।
  • পাসপোর্ট সাইজ ছবি।
  • ব্যাংকের বই ও মোবাইল নম্বর।
National Savings Certificate (ন্যাশনাল সেভিংস সার্টিফিকেট স্কিম)

Lakshmir Bhandar Scheme Online Apply Process

  • লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পের আবেদন করতে হলে সবার প্রথমে অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকে ফর্ম ডাউনলোড করে প্রিন্ট করে নিতে হবে।
  • তারপর সেটি মনোযোগ সহকারে ফিলাপ করে প্রয়োজনীয় নথিপত্র যুক্ত করে, নিকটবর্তী দুয়ারে সরকারের ক্যাম্পে গিয়ে জমা দিতে হবে।
  • আবেদন গ্রাহ্য হলে প্রতি মাসে গ্রাহকের একাউন্টে আসবে টাকা।

কম খরচে আনলিমিটেড 5G ডেটা নতুন দাম অনুসারে দিচ্ছে কোন কোম্পানি?

Lakshmir Bhandar Scheme Offline Apply Process

1) লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পে অফলাইনে আবেদন করতে হলে নিজস্ব জেলার নিকটবর্তী সরকারের ক্যাম্পে গিয়ে লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পের ফর্ম নিতে হবে।
2) এরপর তা যত্ন সহকারে পূরণ করে সমস্ত ডকুমেন্টস সহ ক্যাম্পে জমা করতে হবে।
3) গ্রাহকের আবেদন খতিয়ে দেখে নির্দিষ্ট সময়ে টাকা পাঠিয়ে দেওয়া হবে তার একাউন্টে।
Written by Sampriti Bose.

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button