Trending News

Train Ticket Checking : ‘ট্রেনে টিকিট না কাটলে কপালে শনি নাচছে’! পূর্ব রেলের তরফে কড়া পদক্ষেপ গ্রহণ

পূর্ব ভারতের সকল রেল যাত্রীদের জন্য এক বড় খবর। এবার থেকে ট্রেনের টিকিট না কেটে (Train Ticket Checking) ট্রেনে উঠে যাওয়ার চিন্তা করলে আপনাদের খুবই সমস্যা হতে চলেছে। ভারতীয় রেলওয়ে (Indian Railway) লোকাল ট্রেন (Local Train) হোক বা দূরপাল্লার ট্রেন (Passenger Train) সব মিলিয়ে প্রায় কোটি কোটি মানুষদের রোজ যাতায়াতের ব্যবস্থা করে থাকে (Without Ticket Travel).

Eastern Railway Announce Major Train Ticket Checking Program.

কিন্তু এই সকল মানুষের মধ্যে এমন অনেকেই আছেন যারা ট্রেনের টিকিট না কেটে (Train Ticket Checking) নিজেদের গন্তব্যে যেতে পছন্দ করেন। আর এই সংখ্যা খুব একটা কম নয়। আর এই জন্য অনেক ক্ষেত্রেই দেখা যাচ্ছে এই ফলে সরকারের বছরে কয়েক কোটি টাকা লোকসান হচ্ছে এবং ট্যাক্স পেয়ার (Tax Payers) দের টাকার মাধ্যমে এই সব কিছু চলছে।

ট্রেনের টিকিট নিয়ে পূর্ব রেলের বড় ঘোষণা

ভারতের রেল ব্যবস্থা দিনে দিনে আরও বেশি উন্নত হয়ে উঠেছে। সম্প্রতি ১২ বগির ট্রেনের থেকে ৯ বগির ট্রেনের কামরা করে দেওয়া হয়েছে নিত্য যাত্রীদের দুর্ভোগের কথা ভেবে। ভারতীয় রেলওয়ে প্রতিদিন দেশের প্রায় দুই কোটি মানুষকে এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় পৌঁছে দেয়। যে কারণে ভারতীয় রেল (Indian Railway Train Ticket Checking) এখন ভারতীয় নাগরিকদের কাছে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ একটি পরিষেবায় পরিণত হয়েছে।

বিনা টিকিটে ট্রেনে ওঠার দিন শেষ!

প্রতিদিন দেশের এই বিপুল সংখ্যক মানুষদের দায়িত্বের সঙ্গে গন্তব্যে পৌঁছে দেওয়ার ক্ষেত্রে ভারতীয় রেল যেমন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে, ঠিক সেই রকমই যাত্রীদেরও রেল পরিষেবা উপভোগ করতে বেশ কিছু নিয়ম মেনে চলতে হয়। তবে যে সকল নিয়ম মেনে চলতে হয় তার মধ্যে অন্যতম একটি নিয়ম হলো বৈধ টিকিট বুকিং (Train Ticket Booking) করেই ট্রেনে চড়া।

চেতনা ও প্রগতি কর্মসূচী ভারতীয় রেলের তরফে

আর তা না হলেই রেলের তরফ থেকে ধরপাকড় করা হয়ে যাত্রীদের। অন্যান্য যানবাহনের তুলনায় ট্রেনের টিকিটের ভাড়া অনেক কম হলেও আবার ট্রেনেই বিপুল সংখ্যক যাত্রীরা টিকিট না কেটেই ভ্রমণ করে থাকেন। আর এতে তারা দিনের পর দিন দেশের অর্থনৈতিক ক্ষতি করে চলেছেন। এই ধরনের ঘটনা ঠেকানোর জন্য দিন কয়েক আগেই রেলের তরফ থেকে চেতনা (Chetona) নামে একটি কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়। যে কর্মসূচির মূল উদ্দেশ্য ছিল বিনা টিকিটের (Train Ticket Checking) যাত্রীদের সচেতন করা।

ট্রেনের টিকিট চেকিং ধরপাকড়

কথায় আছে অভ্যাস মানুষের এত সহজে বদলানো যায় না। যে কারণে বারবার সচেতন করার পরেও দেখা যাচ্ছে বিপুল সংখ্যক যাত্রীরা আগের মতই টিকিট বুকিং না করেই ট্রেনে চড়ে নিজেদের গন্তব্যের দিকে রওনা দিচ্ছেন। এমন পরিস্থিতিতে এবার পূর্ব রেল নড়েচড়ে বসলো এবং কড়া পদক্ষেপ নিল। পূর্ব রেলের কড়া পদক্ষেপের পরিপ্রেক্ষিতে এবার যে কর্মসূচি চালু করা হয়েছে তার নাম হলো প্রগতি (Progoti Train Ticket Checking).

Employee Pension Scheme (কর্মচারী পেনশন স্কিম)

Train Ticket Checking Start by Eastern Railway

পূর্ব রেলের (Eastern Railway) তরফ থেকে প্রগতি নামে যে কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে সেই কর্মসূচি ফাঁকি দিয়ে বিনা টিকিটে যাত্রীদের ট্রেনে চড়া এক প্রকার দুঃসাধ্য। যে কারণে এমন কাজ যে সকল যাত্রীরা করে থাকেন তাদের এক্ষুনি অভ্যাস ত্যাগ করতে হবে আর তা না হলে তাদের কপালে দুর্গতি আছে তা নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই। নতুন এই কর্মসূচির মধ্য দিয়ে রেল কর্মীরা মাঝ রাস্তায় ট্রেন থামিয়ে টিকিট পরীক্ষার (Train Ticket Checking) অভিযান চালাবে।

বিনা পরিশ্রমে 19000 টাকা প্রতিমাসে! স্টেট ব্যাঙ্কের নতুন স্কিম

নতুন এই কর্মসূচির অংশ হিসেবে টিকিট পরীক্ষকরা (TC) আচমকা দুই স্টেশনের মাঝে ট্রেনে উঠে পড়তে পারেন এবং তারপর এক সঙ্গে বিপুল সংখ্যক টিকিট পরীক্ষক গোটা ট্রেন জুড়ে অভিযান চালাবেন। এমন ঘটনায় বিনা টিকিটের যাত্রীদের ফাঁকি দিয়ে পালানোর উপায় থাকবে না। এমতাবস্থায়, দুর্ভোগ এড়াতে যাত্রীদের অবশ্যই ট্রেনের টিকিট কেটে (Train Ticket Checking) ওঠা যে বাধ্যতামূলক, সেটি আর বলার অপেক্ষা রাখে না।
Written by Sampriti Bose.

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button