চাকরির খবর

WB TET Scam – জাস্টিস গাঙ্গুলির নির্দেশ বহাল রেখে টেট দুর্নীতি মামলা হাইকোর্টে পাঠাল সুপ্রিম কোর্ট, 32 হাজার শিক্ষকের ভবিষ্যত কি?

পশ্চিমবঙ্গে প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতি (WB TET Scam) নিয়ে মামলা চলছে এখনো। কয়েক মাস আগে কলকাতা হাইকোর্টের (Kolkata Highcourt) বিচারপতি অভিজিৎ গাঙ্গুলি (Abhijit Ganguly) টেট দুর্নীতি নিয়ে এক ঐতিহাসিক রায় প্রদান করেন এবং সেখানে ২০১৪ সালের টেট পরীক্ষায় (TET Exam) উত্তীর্ণদের মধ্যে যেই সকল পরীক্ষার্থীরা নিয়োগ প্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণ করে চাকরি পেয়েছিলেন, সেই ৪৩ হাজার শিক্ষক শিক্ষিকাদের মধ্যে প্রায় ৩২ হাজার শিক্ষক শিক্ষিকাদের চাকরি এক লহমায় বাতিলের নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল।

WB TET Scam Case Return In Kolkata Highcourt.

কারণ এই নিয়োগের (WB TET Recruitment) পর থেকেই অধিকাংশ চাকরিপ্রার্থীদের মুখে একটা কথা শোনা যাচ্ছিল যে এই প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগে (Primary Teacher Recruitment) ব্যপক হারে দুর্নীতি করা হয়েছে (WB TET Scam). এরপর থেকে দীর্ঘ ৭ বছর ধরে কলকাতা হাইকোর্টে এই নিয়ে মামলা চলেছে এবং এর মামলায় দেখা যায় যে নিয়োগে সত্যি অনেক দুর্নীতি হয়েছে।

শিক্ষক নিয়োগে এই দুর্নীতিতে পশ্চিমবঙ্গ প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ (West Bengal Board Of Primary Education) এর অনেক আধিকারিকেরও জড়িয়ে থাকার খবর প্রমানিত হয় এবং এই সকল কিছুর ফলে জাস্টিস গাঙ্গুলির তরফে এই ৩২ হাজার শিক্ষক শিক্ষিকাদের নিয়োগ বাতিল করার নির্দেশ দেওয়া হয়। কিন্তু এই মামলাকে চ্যালেঞ্জ করে পর্ষদ (WBBPE) ও বাতিল প্রার্থীদের তরফে ডিভিশন বেঞ্চ ও সুপ্রিম কোর্টে (Supreme Court) মামলা করা হয়।

প্রথমে ডিভিশন বেঞ্চের (Divison Bench) তরফে সিঙ্গেল বেঞ্চের (Single Bench) রায়কে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই বহাল রাখা হয়। কিন্তু সুপ্রিম কোর্টের তরফে WB TET Scam নিয়ে ৩২ হাজার চাকরি বাতিলের নির্দেশ খারিজ করে দেওয়া হয় এবং এই মামলা পুনরায় কলকাতা হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চে ফেরত পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু এখনো পর্যন্ত যেই সকল শিক্ষক ও শিক্ষিকারা মনে করছিলেন যে তাদের চাকরি নিশ্চিত তাদের জেনে রাখা উচিত।

WB TET Scam নিয়ে পরবর্তী শুনানিতে কি হতে চলেছে?

যে সুপ্রিম কোর্টের তরফে WB TET Scam নিয়ে কোন চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। এই মামলার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত কলকাতা হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চের তরফেই নেওয়া হবে। কিন্তু বিচারপতি গাঙ্গুলি (Abhijit Gangopadhyay) এর নির্দেশ খারিজ করা হয়নি। তাহলে প্রশ্ন উঠছে যে চাকরির ভবিষ্যৎ কি এবং চাকরি থাকবে কি থাকবে না এই বিষয় নিয়ে ডিভিশন বেঞ্চের তরফেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। কিন্তু কাউকে আর নতুন করে ইন্টারভিউ দিতে হবে না।

WBBPE TET Scam (পশ্চিমবঙ্গে টেট দুর্নীতি)

WB TET Scam নিয়ে এবারে দেখার অপেক্ষা যে কবে এই মামলার শুনানির দিন কবে ধার্য করা হবে? এবং শেষমেশ এই মামলা নিয়ে কি চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে চলেছে। কিন্তু অনেকেরই প্রশ্ন আর কতদিন এই মামলা চলবে এবং সঠিক সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। এই মামলার গতি প্রকৃতি পরিবর্তন নিয়ে আপনাদের মত নিচে কমেন্ট করে জানাবেন পছন্দ হলে শেয়ার ও সাবসক্রাইব করুন, সঙ্গে থাকুন এই ধরণের আরও খবরের আপডেট পাওয়ার জন্য, ধন্যবাদ।

Ration Card – রেশন কার্ড থাকলে সত্যি কি ৮০ হাজার টাকা পাওয়া যাচ্ছে? দেখুন।

Related Articles

4 Comments

  1. প্রাথমিকে নিয়োগপত্র কেনা মালগুলোকে নিয়ে এতো নাটক হচ্ছে কেন? বামের শেষ থেকে আজ পর্যন্ত যত নিয়োগ হয়েছে বিভিন্ন দপ্তরে তার ৮০ শতাংশ নিয়োগপত্র কেনা মাল। সবকটাকেই লাথি দিয়ে ছাটাই করা উচিৎ। প্রথমিক ভেজাল নিয়োগপত্র ক্রেতা বিক্রেতা সকলকে চিহ্নিত করতে তদন্ত কারী সংস্থার এতো ঢিলাঢালি কেন?

  2. I personally support the judgement of justice Ganguly. He examined it in details. He is such a person of highest level of honesty, so in my opinion 32000, candidates service to be cancelled immediately. There is a purchase of service by way of money not on merit.So why they deprived meritorious students. But needless to say , it is great india, there is a possibility to cancel the decision of justice Ganguly s verdict. Only because his drawbacks he is honest. He is odd man out in present regime.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button