সরকারি নথি

প্রতিমাসে ৩০০০ টাকা! E Shram Card এ অনলাইন আবেদন কিভাবে করবেন?

এখন থেকে E Shram Card নামক নতুন এক জনকল্যাণমূলক পরিষেবার অধীনে প্রতি মাসে ৩০০০ টাকা করে পাবেন দেশের অসংখ্য বেকার যুবক যুবতী ও অস্থায়ী শ্রমিকরা‌। আর এর মাধ্যমে দেশের কোটি কোটি মানুষের খুবই সুবিধা হতে চলেছে। আর এই কার্ড একবার বানিয়ে নিলে সরকারের তরফে অনেক ধরণের সুবিধা দেওয়া হতে পারে ভবিষ্যতে বলে মনে করছেন অনেকে।

E Shram Card 2024 Registration.

বর্তমানে ভারতে বিভিন্ন অসংগঠিত ক্ষেত্রে প্রায় ৪০ কোটিরও বেশি মানুষ কাজ করেন। দৈনিক পারিশ্রমিকের বিনিময়ে কাজ করা এই সব মানুষরা একদিন কাজে অনুপস্থিত থাকলেই তাদের সংসারে আর্থিক অনটন দেখা দেয় । এই রকম নিম্ন মধ্যবিত্ত শ্রেণীর মানুষদের কথা মাথায় রেখেই কেন্দ্রীয় সরকার E Shram Card ব্যবস্থা করেছে। এখনও পর্যন্ত দেশের ২০ কোটি মানুষের নাম এই ই শ্রম কার্ডে নথিভুক্ত করা হয়েছে এবং দেশের ২ কোটির বেশি শ্রমজীবী মানুষ ইতিমধ্যেই এই কার্ডের মাধ্যমে বিভিন্ন পরিষেবা গুলির সুবিধা পাচ্ছেন।

E Shram Card কিভাবে তৈরি করব?

এখন যেমন আধার কার্ড ছাড়া ব্যাংক বা পোস্ট অফিসের কোনো পরিষেবা চলবে না ঠিক তেমনি কেন্দ্র সরকার অসংগঠিত ক্ষেত্রে যে সমস্ত কর্মীরা কাজ করেন অর্থাৎ কৃষক, শ্রমিক, লেবার, টোটো অটো চালক, ড্রাইভার, কন্ডাকটর, নির্মাণ কর্মী, প্রাইভেট টিচার, আশা কর্মী, অঙ্গনওয়াড়ি কর্মী, রিকশা চালক, রাস্তার বিক্রেতা, মিড ডে মিল খাবার শ্রমিক, হেড লোডারস, ইট ভাটা শ্রমিক, মুচি।

ই শ্রম কার্ড 2024 রেজিস্ট্রেশন

রাগ বাছাইকারী, গৃহকর্মী, ওয়াশার পুরুষ, গৃহ ভিত্তিক কর্মী, নিজস্ব হিসাব কর্মী, কৃষি শ্রমিক, নির্মাণ শ্রমিক, বিড়ি শ্রমিক, তাঁত শ্রমিক, চামড়া শ্রমিক, অডিও ভিজ্যুয়াল শ্রমিক বা অনুরূপ অন্যান্য পেশায় যুক্ত শ্রমিক থেকে শুরু করে প্রায় সমস্ত অসংগঠিত শ্রমিকেরা এখানে আবেদন করতে পারবেন। এসব পেশার সঙ্গে যুক্ত সমস্ত কর্মীদের জন্য যে প্রকল্প গুলো বরাদ্দ রয়েছে ওই প্রকল্পের সুবিধা পেতে গেলে এই E Shram Card নাম লেখানো বাধ্যতামূলক করা হয়েছে কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে।

ই শ্রম কার্ড লিস্ট ২০২৪ সুবিধা অনলাইন আবেদন ও ডাউনলোড

  • অসংগঠিত ক্ষেত্রে যারা কাজ করেন, তারা ই শ্রম কার্ডে নাম লেখাতে পারবেন।
  • আবেদনকারীর বয়স হতে হবে ১৬ থেকে ৫৯ বছরের মধ্যে।
  • EPF ও ESI এর সুবিধা পাচ্ছেন এমন ব্যক্তিরা এই E Shram Card নাম নথিভুক্ত করতে পারবেন না।

ই শ্রম কার্ড করতে কি কি লাগে?

1) আবেদনকারীর নিজস্ব আধার কার্ড।
2) আবেদনকারীর নিজস্ব নামে থাকা ব্যাংক একাউন্টের কপি।
3) আবেদনকারীর নিজস্ব মোবাইল নম্বর।

E Shram Card কি কি সুবিধা পাওয়া যায়

1) অসংগঠিত ক্ষেত্রে কাজ করা E Shram Card থাকা কর্মীরা, ষাট বছর বয়সের পর প্রতি মাসে ৩০০০, টাকা করে পেনশন পেতে পারেন।
2) কর্মরত অবস্থায় কোনো অ্যাক্সিডেন্টের ফলে যদি ব্যক্তিটির অঙ্গহানি হয় বা পঙ্গু হয়ে যান, সেক্ষেত্রে তার পরিবার এক লক্ষ টাকার আর্থিক অনুদান পেতে পারবেন।
3) যদি ই শ্রম কার্ডে নাম নথিভুক্ত থাকা ব্যক্তিটি হঠাৎ মারা যান তবে তার পরিবার দু লক্ষ টাকার বীমার সাহায্য পাবেন।

ই-শ্রম কার্ডের জন্য নিবন্ধন করুন

E Shram Card নাম নথিভুক্ত থাকলে তবেই Pradhan Mantri Awas Yojana, Pradhan Mantri Jan Aushadhi Yojana, Pradhan Mantri Kisan Samman Nidhi Yojana সহ একাধিক কেন্দ্রীয় সরকারের সামাজিক সুরক্ষা প্রকল্পের সুবিধা উপভোগ করতে পারবে ওই কর্মীরা। এছাড়াও বিভিন্ন ধরনের বীমা (Insurance), আয়ুষ্মান ভারত, কৃষকদের সাহায্য ইত্যাদি পেতে গেলেও ই শ্রম কার্ডে নাম নথিভুক্ত করতে হবে।

Krishak Bandhu (কৃষক বন্ধু)

ই শ্রম কার্ড অনলাইনে আবেদন করুন

1) আবেদনকারীকে প্রথমে ই শ্রম পোর্টালের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে যেতে হবে।
2) এর হোম পেজে গিয়ে বিকল্পে ক্লিক করলে রেজিষ্ট্রেশন ফর্ম খুলে যাবে। এই পেজে আবেদনকারীর আধার লিঙ্কড মোবাইল নাম্বার, ক্যাপচা কোড, ইপিএফও এবং ইএসআইসি মেম্বার স্ট্যাটাস নির্বাচন করুন।
3) এখন আবেদনকারী মোবাইল নাম্বারে ওটিপি পাঠানোর জন্য সেন্ড ওটিপি বিকল্পে ক্লিক করতে হবে। এরপর, আবেদনকারীকে তার মোবাইল নাম্বারে পাঠানো ওটিপিটি লিখতে হবে।

1লা জুলাই থেকে LPG গ্যাস সহ Fixed Diposit নিয়ম বদল! Credit Card নিয়েও RBI এর নতুন নিয়ম

4) এখন আবেদন ফর্মটিকে সম্পূর্ন পূরণ করতে হবে যেখানে আবেদনকারীকে নাম, ঠিকানা, বয়স, স্যালারি লিখতে হবে।
5) ফর্ম সম্পূর্ন পূরণ করার পর আপনাকে এর সাথে প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টসও আপলোড করতে হবে।
6) এরপর সাবমিট বিকল্পে ক্লিক করলে E Shram Card রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া সফলভাবে পাঠানো হয়ে গেছে বলে দেখানো হবে।
Written by Sampriti Bose.

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button