সরকারি প্রকল্প

এবারে ১০ হাজার টাকা! Krishak Bandhu প্রকল্প নিয়ে বড় ঘোষণা পশ্চিমবঙ্গ সরকারের

আর নয় ১০০০, ১২০০! এবারে ১০০০০ টাকা পাবেন Krishak Bandhu বা কৃষক বন্ধু প্রকল্পের মাধ্যমে। পশ্চিমবঙ্গ সরকারের (Government of West Bengal) তরফে এই সম্পর্কে এক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য প্রকাশ করা হল। রাজ্যের অসংখ্য কৃষকের (Farmers) জন্য এসে গেল দারুণ সুখবর। তাদের দীর্ঘদিনের অপেক্ষার অবসান হতে চলেছে। কারণ ইতিমধ্যেই রাজ্যের কৃষকদের ব্যাংক একাউন্টে কৃষক বন্ধু প্রকল্পের টাকা পাঠানো শুরু করেছে রাজ্য সরকার। আর অনেক কৃষক PM কিষাণ যোজনার আওতায় টাকা পেয়ে গেছেন।

West Bengal Krishak Bandhu Scheme.

কৃষিপ্রধান দেশ হওয়া সত্ত্বেও ভারতবর্ষ শিক্ষা, শিল্প সহ সব ক্ষেত্রেই বিশ্বের অন্যান্য দেশের তুলনায় অনেকাংশে এগিয়ে গিয়েছে। তবে, দেশে কৃষকের সংখ্যা নিতান্তই কম নয়। আর সেই কৃষকদের জন্য মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে পশ্চিমবঙ্গ সরকার কৃষক পরিবার গুলোকে আর্থিক সহায়তা দেওয়ার জন্য কৃষক বন্ধু প্রকল্প চালু করেছেন। এই প্রকল্পের প্রাথমিক লক্ষ্য হলো সমস্ত পশ্চিম বাঙালি কৃষকদের আর্থিক সহায়তা প্রদান করা।

পশ্চিমবঙ্গ কৃষক বন্ধু প্রকল্প ২০২৪

কৃষকবন্ধু প্রকল্পের জন্য আবেদন ও নিবন্ধন করতে, একজন কৃষকের কমপক্ষে এক একর জমি থাকতে হবে। তা করতে ব্যর্থ হলে কৃষকরা কর্মসূচিতে অংশ নিতে বাধা পেতে পারেন বলে এদিন জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। মূলত কৃষকবন্ধু প্রকল্পের অধীনে, পশ্চিমবঙ্গের কৃষি বিভাগ প্রতি বছরে ৫০০০ টাকার দুটি কিস্তিতে ১০০০০ টাকা প্রদান করে থাকে।

কৃষক বন্ধু স্ট্যাটাস চেক ২০২৪

কৃষকবন্ধু প্রকল্পের খারিফ অনুদান মূলত মে এবং জুন মাসের মধ্যেই দেওয়া হয়। গত বছরের পঞ্চায়েত নির্বাচন এই তারিখের হেরফের ঘটিয়েছে। এপ্রিল মাসেই ঢুকে গিয়েছিল পুরো টাকা। আর এবার যদিও তা আর হবে না। লোকসভা নির্বাচনের পরেই টাকা পাঠানো হবে বলে আগেই জানানো হয়েছিল। জুন মাসের ২৭, ২৮ তারিখ নাগাদ টাকা ঢোকার প্রক্রিয়া শুরু হওয়ার কথা চলছিল। ব্লক অফিস সুত্রে জানা গিয়েছে, রাজ্য সরকারের তরফে খারিফ অনুদান দেওয়ার জন্য সমস্ত কাজকর্ম ইতিমধ্যেই শুরু করে দেওয়া হয়েছে। রাজ্যের মোট ১.৫ কোটি কৃষকদের জন্য ২৯০০ কোটি টাকার ফান্ড নির্ধারণ করা হয়েছে।

কৃষক বন্ধু টাকা কবে ঢুকবে 2024

অনেকের একাউন্টে ইতিমধ্যেই এই টাকা ঢুকতে শুরু করেছে, শীঘ্রই সবাই এই টাকা পেয়ে যাবেন। আর টাকা না ঢুকলে অতি সত্বর নিকটবর্তী কোনও তথ্যমিত্র কেন্দ্র বা CSC সেন্টারে গিয়ে যোগাযোগ করতে হবে কৃষকদের। সেখান থেকেই এই বিষয়ে সাহায্য করা হবে। এই দিকে কৃষকদের সাহায্য করার বিষয়ে ট্যুইট করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

Ration (রেশন কার্ড)

কৃষক বন্ধু টাকা ঢুকেছে কিনা কিভাবে দেখব?

তিনি বলেন, ২০১৯ সালের পর থেকে এখনও পর্যন্ত কৃষকবন্ধু প্রকল্পের মাধ্যমে রাজ্যের কৃষকদের মোট ১৮ হাজার ২৩৫ কোটি টাকা দিয়েছেন তিনি। এছাড়া নিজের ট্যুইটে তিনি এও উল্লেখ করেন যে, ১৮ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে কোনো কৃষক মারা গেলে তার পরিবারকেও ২ লক্ষ টাকা আর্থিক সাহায্য করা হচ্ছে। ২০১৯ সাল থেকে এই হিসেবে মোট ১ লক্ষ ১২ হাজার কৃষকের পরিবারকে আর্থিক ক্ষতিপূরণ দেওয়া হয়েছে ২ হাজার ২৪০ কোটি টাকা।

লক্ষ্মীর ভাণ্ডার নিয়ে কোন চিন্তা নেই! বিরাট খবর মা বোনেদের জন্য

Krishak Bondhu Online Apply Process

1) কৃষকবন্ধু প্রকল্পের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট ভিজিট করতে হবে।
2) কৃষকবন্ধু স্ট্যাটাস দেখতে, নতুন স্ক্রিনে যেতে হবে এবং আপনার আধার নম্বর ইনপুট করতে হবে।
3) প্রথমবারের জন্য ওয়েবসাইটটি অ্যাক্সেস করার সময় ‘Registered Farmar Information’ বিকল্পটি উপস্থিত হয়।
4) এই বিকল্পটিই এবার নির্বাচন করলে একটি নতুন স্ক্রিন উপস্থিত হয়।
5) এবার আবেদনকারী কৃষক বন্ধু স্ট্যাটাসে ক্লিক করে প্রদর্শিত নতুন স্ক্রিনে তার আধার কার্ড নম্বরটি প্রবেশ করে কৃষকবন্ধু প্রকল্পের সুবিধাভোগীর অবস্থা এবং অর্থ প্রদানের স্ট্যাটাস পরীক্ষা করতে পারেন।
Written by Sampriti Bose.

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button