গত ১০ ই জুন উচ্চমাধ্যমিকের রেজাল্ট বেরোনোর পরে প্রায় প্রত্যেক ছাত্রছাত্রীই নিজেদের পছন্দের কলেজে নানারকম কোর্স, যেমন:- B.A, B.Sc, B.com ইত্যাদিতে ভর্তির জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছেন।  প্রসঙ্গত, এবার কলেজগুলোতে আবেদনের জন্য প্রত্যেকটি কলেজের আলাদা আলাদা ওয়েবসাইটে যাওয়ার প্রয়োজন নেই ; একটি ওয়েবসাইটের মাধ্যমেই সমস্ত কলেজে আবেদন করতে পারবেন। এবিষয়ে কিছুদিন আগেই মাননীয় শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু সবুজ সংকেত দিয়েছেন। চলুন এবার জেনে নেওয়া যাক, কলেজে ভর্তির জন্য কীভাবে আবেদন করবেন, কী কী লাগবে, ইত্যাদি সমস্ত রকম বিষয় নিয়ে।

• আবেদন করতে কী কী লাগবে?
(১) মাধ্যমিকের অ্যাডমিট ও মার্কশিট
(২) উচ্চামাধ্যমিকের অ্যাডমিট ও মার্কশিট
(৩) আবেদনকারীর পাসপোর্ট সাইজ ফটো ও স্বাক্ষর 

• কীভাবে আবেদন করবেন?
কলেজে ভর্তির জন্য শুধুমাত্র একটি ওয়েবসাইট https://www.wbsche.ac.in/ তে গিয়ে Apply এ ক্লিক করতে হবে এবং প্রয়োজনীয় তথ্য ফিল আপ করতে হবে। তারপরে ডকুমেন্টস আপলোড করে কলেজ সিলেক্ট করে আবেদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হবে। তিনধারণের কলেজের ক্ষেত্রে, যথা:- ডিগ্রী কলেজ, ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ ও Law কলেজের ক্ষেত্রে এইভাবে আবেদন করা যাবে।

উল্লেখ্য, ২০২২-২৩ বর্ষে কলেজে ভর্তির জন্য আবেদন এখনও শুরু হয়নি। আবেদন শুরু হলেই ওয়েবসাইটটিতে Apply এর অপশন পাবেন।

• কীভাবে মেধাতালিকা (Merit List) বেরোবে?
প্রতিটি কলেজে মেধাতালিকা বের করার জন্য আলাদা আলাদা ফর্মুলা থাকে, যাতে পরীক্ষায় প্রাপ্ত মোট নম্বর ও নির্দিষ্ট বিষয়টির নম্বরের নির্দিষ্ট পার্সেন্টেজ নিয়ে মেরিট স্কোর তৈরী করা হয়। তবে এবার সূত্রের খবর, উচ্চমাধ্যমিকের পাশাপাশি মাধ্যমিকের নম্বরও মেরিট লিস্ট তৈরী করার জন্য নেওয়া হবে।

• কীভাবে কলেজে ভর্তি হবে?
মেরিট লিস্ট বের হওয়ার কিছদিনের মধ্যেই ভর্তি প্রক্রিয়া শুরু হয়ে যাবে। তুমি যদি সেই নির্দিষ্ট কলেজটির মেধাতালিকা অনুসারে ও সেই কোর্সে বরাদ্দ আসন সংখ্যার ভিত্তিতে চান্স পাও, তাহলে তোমার মোবাইলে কলেজটির অফিসিয়াল ওয়েবসাইটের তরফ একটি SMS ও ইমেল যাবে। যেখানে তোমাকে নির্দিষ্ট সময়সীমার মধ্যে অনলাইনে আবেদন ফি পেমেন্ট করতে হবে। ভর্তি হয়ে গেলে ভেরিফিকেশনের জন্য তোমাকে কলেজে যেতে হবে। ভেরিফিকেশন প্রসেস সম্পন্ন হলেই তুমি সেই কলেজে সরাসরি ভর্তি হয়ে যাবে।