you-can-get-10000-rupees-yearly-from-nabanna-scholarship-2022-know-the-details-and-apply

আপনি কী ভালো কোনো স্কলারশিপে আবেদন করতে চান? তাহলে এই প্রতিবেদনটি আপনার অনেক কাজে লাগবে। আজকের এই প্রতিবেদনে পশ্চিমবঙ্গের অন্যতম জনপ্রিয় নবান্ন স্কলারশিপ (Nabanna Scholarship 2022) সম্পর্কে আলোচনা করবো। প্রতিবছর বহু ছাত্রছাত্রীকে এই স্কলারশিপ দেওয়া হয়। যে সকল পড়ুয়ারা দশম বা দ্বাদশ শ্রেণী অথবা স্নাতক কোর্স পাশ করেছেন তাঁরা এই স্কলারশিপের জন্য সহজেই আবেদন করতে পারেন। কীভাবে এই নবান্ন স্কলারশিপে আবেদন করবেন, কারা এই স্কলারশিপের জন্য আবেদন করতে পারবেন, আবেদনের জন্য কোন নথিগুলো লাগবে ইত্যাদি সমস্ত বিষয় নিয়ে নীচে আলোচনা করা হলো।

নবান্ন স্কলারশিপ কী?

পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকার কর্তৃক প্রতিবছর ছাত্রছাত্রীদের পড়াশোনায় আর্থিক সাহায্য প্রদানের উদ্দেশ্যে এই স্কলারশিপ দেওয়া হয়। সরাসরি মুখ্যমন্ত্রী ত্রাণ তাহবিল থেকে নবান্ন স্কলারশিপের টাকা দেওয়া হয়। এই স্কলারশিপের মাধ্যমে ছাত্রছাত্রীদের প্রতি বছর ১০,০০০ টাকা করে দেওয়া হয়। একাদশ শ্রেণী থেকে শুরু করে একেবারে স্নাতকোত্তর স্তর পর্যন্ত ছাত্রছাত্রীরা নবান্ন স্কলারশিপের জন্য আবেদন করতে পারেন।

কারা নবান্ন স্কলারশিপের জন্য আবেদন করতে পারবেন?

১. আবেদনকারী পড়ুয়াকে পশ্চিমবঙ্গের স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে।
২. পশ্চিমবঙ্গের কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পড়াশোনা করতে হবে।
৩. আবেদনকারী ছাত্রছাত্রী মাধ্যমিক / উচ্চমাধ্যমিক অথবা কোনো কলেজ বা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে উত্তীর্ণ হয়ে নতুন কোর্সে ভর্তি হলে এই স্কলারশিপের জন্য আবেদন করতে পারেন।
৪. পরিবারের বার্ষিক আয় ১ লক্ষ ২০ হাজার টাকার বেশী হওয়া চলবে না।
৫. একাদশ-দ্বাদশ শ্রেণী ও স্নাতক স্তরে নবান্ন স্কলারশিপ পেতে চাইলে আবেদনকারী পড়ুয়াকে ৫০ থেকে ৬০ শতাংশের মধ্যে নম্বর পেতে হবে।
৬. স্নাতকোত্তর কোর্সের জন্য নবান্ন স্কলারশিপ পেতে চাইলে আবেদনকারী শিক্ষার্থীকে ৫০ থেকে ৫৩ শতাংশের মধ্যে নম্বর পেতে হবে।

[ উল্লেখ্য, এর বেশী নম্বর পেলে ছাত্রছাত্রীরা সরাসরি রাজ্য সরকারের আরও একটি জনপ্রিয় স্কলারশিপ তথা – স্বামী বিবেকানন্দ স্কলারশিপের জন্য আবেদন করতে পারেন।]

পারম্পরিক স্কলারশিপের জন্য আবেদন করুন এবং পেয়ে যান প্রতি বছর ভালো পরিমান আর্থিক অনুদান

নবান্ন স্কলারশিপের জন্য আবেদন করতে কী কী লাগবে?

১. আগের পরীক্ষার মার্কশীটের কপি
২. র‍্যাঙ্ক কার্ড ও নির্বাচন কমিটির Allotment Letter ( শুধুমাত্র JEE ও তার সমতুল্য পরীক্ষার জন্য)
৩. ইনকাম সার্টিফিকেট
৪. আবেদনকারী ছাত্রছাত্রীর পরিবারের মাসিক আয় উল্লেখ করে একজন বিধায়ক বা সাংসদের মুখ্যমন্ত্রীর কাছে সুপারিশ পত্র
৫. ব্যাংক সংক্রান্ত তথ্য, IFSC কোড, ব্রাঞ্চ কোড, ব্যাংক শাখার নাম, অ্যাকাউন্ট নম্বর ও ব্যাংকের পাসবুকের প্রথম পাতার জেরক্স
৬. ভর্তির রিসিপ্ট
৭. স্ব ঘোষণা পত্র, তাতে আবেদনকারী শিক্ষার্থীর বর্তমান শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রধানের স্বাক্ষর থাকতে হবে

কীভাবে নবান্ন স্কলারশিপের জন্য আবেদন করতে হবে?

এই স্কলারশিপের জন্য অফলাইনে আবেদন করতে হয়। একটি সাদা কাগজে নিজের আবেদনপত্র লিখে তার সাথে উপরোক্ত ডকুমেন্টগুলো অ্যাটাচ করে তা মুখবন্ধ খামে নিম্নলিখিত ঠিকানায় পাঠিয়ে দেবেন।

আবেদনপত্র পাঠানোর ঠিকানা-
The Assistant Secretary,
Chief Minister’s Office,
‘Nabanna’
325, Sarat Chatterjee Road
Howrah – 711 102

নির্বাচন পদ্ধতি: –

প্রথমে আবেদনকারী শিক্ষার্থীর আবেদনপত্র ও ডকুমেন্টগুলো উচ্চপদস্থ সরকারি অধিকারিকদের দ্বারা যাচাই করা হবে এবং তারপরে সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল থেকে সরাসরি আবেদনকারীর ব্যাংক অ্যাকাউন্টে নবান্ন স্কলারশিপের টাকা দিয়ে দেওয়া হবে।

আবেদনের সময়সীমা:-

নবান্ন স্কলারশিপে আবেদনের কোনো শেষ তারিখ নেই। আপনি নতুন কোর্সে ভর্তি হওয়ার পরে এই স্কলারশিপের জন্য আবেদন করতে পারবেন।

বিভিন্ন রকম স্কলারশিপ সংক্রান্ত এই রকম আরও নানান গুরুত্বপূর্ণ খবর পেতে আমাদের ওয়েবসাইটটি ফলো করুন এবং নীচের ডানদিকের টেলিগ্রাম আইকনে ক্লিক করে আজই জয়েন হন আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলে