Get-60000-rupees-yearly-from-Aikyashree-scholarship-know-the-details-and-apply

পশ্চিমবঙ্গে বসবাসকারী বৌদ্ধ, খিস্ট্রান, জৈন, মুসলিম, পার্সি এবং শিখ সহ অন্যান্য সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ছাত্র-ছাত্রীরা যাতে শিক্ষাক্ষেত্রে এগিয়ে যেতে পারে এবং উচ্চশিক্ষা লাভ করতে পারে তার জন্য রাজ্য সরকারের তরফে ঐক্যশ্রী স্কলারশিপ (Aikyashree Scholarship) এর অধীনে অনুদান প্রদান করা হয়ে থাকে। মূলত প্রথম শ্রেণী থেকে শুরু করে পিএইচডি স্তরে পাঠরত ছাত্র-ছাত্রীরা পর্যন্ত এই স্কলারশিপের অধীনে অনুদান পেয়ে থাকেন। আর আজ আমরা আলোচনা করতে চলেছি কিভাবে আপনারা ঐক্যশ্রী স্কলারশিপ এর অনুদানের জন্য আবেদন করতে পারবেন, কতদিন পর্যন্ত চলবে আবেদনের প্রক্রিয়া, কি কি নথি প্রয়োজন হবে ইত্যাদি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলি। আপনার ক্ষেত্রেও যদি আপনার পরিবারের আর্থিক অবস্থা আপনার উচ্চশিক্ষা লাভের পথে অন্তরায় হয়ে দাঁড়ায় তবে আপনিও এই স্কলারশিপের অনুদানের জন্য আবেদন করতে পারেন।

কারা এই স্কলারশিপে আবেদনের যোগ্য?

১. আবেদনকারীকে অবশ্যই পশ্চিমবঙ্গের স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে।
২. আবেদনকারী ছাত্র অথবা ছাত্রীকে অবশ্যই পশ্চিমবঙ্গ সরকার স্বীকৃত যেকোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পাঠরত হতে হবে।
৩. যেসকল ছাত্র-ছাত্রীরা বিগত পরীক্ষায় অন্ততপক্ষে ৫০ শতাংশ নম্বর পেয়েছেন কেবলমাত্র তারাই এই স্কলারশিপে আবেদনের যোগ্য। যদিও প্রথম শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের জন্য এই নিয়ম প্রযোজ্য নয়।
৪. প্রি ম্যাট্রিক এবং পোস্ট ম্যাট্রিক স্তরের যেসকল শিক্ষার্থীদের পরিবারের বার্ষিক আয় ২ লক্ষ টাকা বা তার চেয়ে কম তারাই এই স্কলারশিপের জন্য আবেদনের যোগ্য। অন্যদিকে মেরিট কাম মিন্স স্কলারশিপের ক্ষেত্রে যেসকল ছাত্র-ছাত্রীদের পরিবারের বাৎসরিক আয় ২.৫ লক্ষ টাকা বা তার কম তারাই কেবলমাত্র আবেদনের যোগ্য।
৫. প্রি-ম্যাট্রিক স্কলারশিপের ক্ষেত্রে ছাত্র-ছাত্রীরা তাদের পিতা অথবা মাতা কিংবা অভিভাবকের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে আবেদন করতে পারবেন। কিন্তু অন্যান্য স্তরে পাঠরত ছাত্র-ছাত্রীদের ক্ষেত্রে যাদের নিজস্ব অ্যাকাউন্ট রয়েছে তারাই কেবলমাত্র এই স্কলারশিপে আবেদনের যোগ্য।
৬. যেসকল ছাত্র-ছাত্রীদের বাংলার শিক্ষা পোর্টালের ইউনিক আইডি রয়েছে তারাই কেবলমাত্র এই স্কলারশিপের অনুদানের জন্য আবেদন করতে পারবেন।
৭. আবেদনকারী ছাত্র অথবা ছাত্রীদের নিজস্ব আধার নম্বর থাকা আবশ্যক।

একই নাম্বার দিয়ে দুটো মোবাইলে হোয়াটসঅ্যাপ ব্যাবহার করতে চান, তবে এই পদ্ধতি ফলো করুন

কত টাকা অনুদান পাওয়া যাবে?

এই স্কলারশিপের অধীনে অনুদান প্রদানের সুবিধার খাতিরে এই স্কলারশিপটিকে মূলত চারটি ভাগে ভাগ করা হয়ে থাকে, যথা:

১. প্রি-ম্যাট্রিক ঐক্যশ্রী স্কলারশিপ: প্রথম শ্রেণী থেকে শুরু করে দশম শ্রেণীর পাঠরত ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য।
২. পোস্ট-ম্যাট্রিক ঐক্যশ্রী স্কলারশিপ: একাদশ শ্রেণী থেকে শুরু করে পিএইচডি স্তরে পাঠরত ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য।
৩. মেরিট কাম মিন্স স্কলারশিপ: টেকনিক্যাল এবং প্রোফেশনাল কোর্সে পাঠরত ছাত্রছাত্রীদের জন্য।
৪. অন্যান্য স্কলারশিপ: স্বামী বিবেকানন্দ স্কলারশিপ মেরিট কাম স্কলারশিপ
এই চারটি বিভাগের অধীনে বিভিন্ন শ্রেণীতে পাঠরত শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন পরিমাণ অনুদান দেওয়া হয়ে থাকে। যথা:
১. প্রথম শ্রেণী থেকে শুরু করে পঞ্চম শ্রেণীতে পাঠরত শিক্ষার্থীদের বছরে ১১০০ টাকা করে দেওয়া হয়ে থাকে।
২. ষষ্ঠ শ্রেণী থেকে দশম শ্রেণীতে পাঠরত ছাত্র-ছাত্রীদের ৫,৫০০ টাকা করে প্রতি বছরে অনুদান প্রদান করা হয়ে থাকে। অন্যদিকে হোস্টেলে থেকে যেসকল ছাত্রছাত্রীরা পড়াশোনা করেন তাদের বছরে ১১,০০০ টাকা করে দেওয়া হয়।
৩. একাদশ শ্রেণীতে এবং দ্বাদশ শ্রেণীতে শিক্ষারত ছাত্রছাত্রীরা এই স্কলারশিপের অধীনে প্রতি বছর ১০,২০০ টাকা করে পেয়ে থাকেন। অন্যদিকে, হোস্টেলে থেকে যেসকল ছাত্রছাত্রীরা পড়াশোনা করেন তাদের বছরে ১১,৯০০ টাকা করে দেওয়া হয়।
৪. ডাক্তারি এবং ইঞ্জিনিয়ারিং এর মতো প্রফেশনাল কোর্সে পাঠরত ছাত্রছাত্রী যারা বিগত পরীক্ষায় ৫০ থেকে ৬০ শতাংশ নম্বর পেয়েছেন তারা ২৭,৫০০ টাকা করে পাবেন এবং যারা ৬০ শতাংশের অধিক নম্বর পেয়েছেন তারা ৬০,০০০ টাকা করে অনুদান পাবেন।
৫. অন্যদিকে স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর স্তরে শিক্ষারত ছাত্রছাত্রী যারা বিগত পরীক্ষায় বছরে ৫০ থেকে ৬০ শতাংশ নম্বর পেয়েছেন তারা ৬,৬০০ টাকা পাবেন এবং যারা ৬০ শতাংশের অধিক নম্বর পেয়েছেন তারা ১২,০০০ থেকে ১৮,০০০ টাকা করে পাবেন।
৬. এম. ফিল এবং পিএইচডি স্তরে পাঠরত শিক্ষার্থীদের যথাক্রমে ৫০০০ টাকা প্রতি মাসে এবং ৮,০০০ টাকা প্রতিমাসে দেওয়া হবে।
৭. টেকনিক্যাল ও ভোকেশনাল ক্ষেত্রে শিক্ষারত ছাত্র-ছাত্রীদের বছরে ১৩,৫০০ টাকা দেওয়া হবে এবং যেসকল ছাত্রছাত্রীরা পড়াশোনার খাতিরে হোস্টেলে থাকেন তাদের ১৫,২০০ টাকা করে দেওয়া হবে।

মাত্র ১৯৯ টাকায় দেড় জিবি করে নেট দিচ্ছে জিও, চলবে সারামাস, এখনই রিচার্জ করুন

আবেদনের প্রক্রিয়া:-

১. এই স্কলারশিপে আবেদনের ক্ষেত্রে ছাত্র-ছাত্রীদের প্রথমেই ঐক্যশ্রী স্কলারশিপের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট http://wbmdfcscholarship.org/main/apps_view এ যেতে হবে।
২. এরপর আপনাকে Student’s area তে ক্লিক করতে হবে।
৩. এরপর Fresh Registration 2022-2023 অপশনে ক্লিক করুন।
৪. উপরোক্ত অপশনে ক্লিক করলেই আপনি আবেদনের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় ফর্মটি দেখতে পাবেন। ওই ফর্মে আপনার নাম, জন্ম তারিখ, মোবাইল নম্বর সহ সমস্ত তথ্য সঠিকভাবে পূরণ করুন। ঐক্যশ্রী স্কলারশিপের জন্য আবেদনের ক্ষেত্রে একটি মোবাইল নম্বর থেকে কেবলমাত্র একজন পড়ুয়ার ক্ষেত্রেই আবেদন করা সম্ভব।
৫. এরপর ফর্মটি সাবমিট করুন।
৬. সবশেষে ফর্মটির প্রিন্ট আউট সমস্ত নথি সহ আপনার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে জমা করতে হবে।
এই স্কলারশিপের ক্ষেত্রে একজন ছাত্র অথবা ছাত্রী কেবলমাত্র একটি স্কলারশিপের জন্য আবেদনের যোগ্য।

আবেদনের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় নথি:-

১. আধার কার্ড।
২. ব্যাংক অ্যাকাউন্টের ডিটেইলস।
৩. বিগত পরীক্ষার মার্কশিট।
৪. পরিবারের বাৎসরিক আয়ের সার্টিফিকেট।
৫. জাতিগত শংসাপত্র (যাদের রয়েছে)।
৬. মাধ্যমিকের অ্যাডমিট কার্ড (যাদের রয়েছে)।

এই রকম আরও নানান গুরুত্বপূর্ণ খবর পেতে আমাদের ওয়েবসাইটটি ফলো করুন এবং নীচের ডানদিকের টেলিগ্রাম আইকনে ক্লিক করে আজই জয়েন হন আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলে